আদমদীঘিতে নির্বাচনী সহিংসতা, কিশোরীসহ আহত-৭

প্রকাশিত: ৯:৫৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২১

আহসান হাবিব শিমুল (আদমদীঘি প্রতিনিধি)

বগুড়ার আদমদীঘিতে পঞ্চম ধাপের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার শুরুতেই দেখা দিয়েছে সহিংস ঘটনা। প্রচার-প্রচারণার প্রথম দিন মঙ্গলবার উপজেলা সদর ইউপি’র কাশিমিলা বটতলী নামক স্থানে নৌকা মার্কার পোস্টার ছিড়ে এক মেম্বার প্রার্থীর পোস্টার লাগানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু পক্ষের সংঘর্ষে আদমদীঘি সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আকরাম হোসেন সহ ৫ জন আহত হয়েছে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে। আহতরা হলেন, আকরাম হোসেন (৪৮) শফিকুল ইসলাম (৪৪) মিজানুর রহমান (৪৫) মুক্তার (৩৮) ও আনোয়ার হোসেন (৩৬)। এদিকে সংঘর্ষের কথা ছড়িয়ে পড়ায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, সোমবার প্রার্থীদের প্রতিক বরাদ্দের পর মঙ্গলবার সকালে আদমদীঘি সদর ইউনিয়নের কাশিমিলা গ্রামের তিনমাথা বটতলী স্থানে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের নৌকা প্রতীকের পোস্টার টাঙ্গানো হয়। এর কিছুক্ষণ পর একই স্থানে নৌকা প্রতীকের পোস্টারের পাশাপাশি ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী জয়েন উদ্দীনের তালা মার্কার পোস্টার টাঙ্গানো ও নৌকা মার্কার পোস্টার ছেড়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষে ওই ৫ জন আহত হয়। আদমদীঘি থানার অফিসার ইনর্চাজ জালাল উদ্দিন নৌকা প্রতিকের পোস্টার ছেঁড়ার কথা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, সান্তাহার ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের দমদমা গ্রামে এক মেম্বার প্রার্থীকে সমর্থন করা না করাকে কেন্দ্র করে মারপিটে উজ্জল হোসেন (৩০) ও তার মেয়ে নিঝুম (১২), উজ্জল হোসেনের মামা ও তার লোকজনের মারধরে গুরুতর আহত হয়েছে। উজ্জল হোসেনের বাবা আফাজ উদ্দীন জানান, উজ্জল এই নির্বাচনে মেম্বার প্রার্থী জাহিদুল ইসলামকে (ফুটবল মার্কা) সমর্থন করে। কিন্তু তার মামা ফরহাদ হোসেন তার সমর্থনের প্রার্থী লুৎফর রহমানের (টিউবয়েল মার্কার) পক্ষে কাজ করতে বলেন। কিন্তু একথা না শোনায় সোমবার রাতে উজ্জলকে তার মামা ফরহাদ হোসেনসহ কয়েকজন ব্যাপক মারপিট করে। গুরুতর আহত উজ্জল হোসেনকে রাতেই বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান  মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আদমদীঘি থানার ওসি জালাল উদ্দিন জানান, দমদমা গ্রামের ঘটনায় থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে ।