আদমদীঘিতে পৌনে ১১ হাজার কেজি চোরাই চাল উদ্ধার

প্রকাশিত: ৫:৩২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২১
ai

আহসান হাবিব শিমুল (আদমদীঘি প্রতিনিধি)

মঙ্গলবার রাতে আদমদীঘি উপজেলার নসরতপুর থেকে খাদ্য বান্ধব ও ভিজিডি কর্মসূচির প্রায় পৌনে ১১ হাজার কেজি চোরাই চাল উদ্ধার করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্রাবনী রায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করে ওই পরিমাণ চাল জব্দ ও উদ্ধার করেন। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় সোয়া ৪ লাখ টাকা।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নসরতপুর ইউনিয়নের পূর্ব ডালম্বা গ্রামের একরাম হোসেনের ছেলে আল মামুন, নসরতপুর ডিগ্রী কলেজ এলাকার ইসমাইল হোসেন মন্ডলের পরিত্যক্তপ্রায় চালকল ভাড়া নেয়। অসাধু ব্যবসায়ী মামুন বৈধ ব্যবসার আড়ালে দীর্ঘ দিন থেকে চোরাই চালের ব্যবসা করে আসছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্রাবনী রায় ওই চালকলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের যানবাহনের শব্দ পেয়ে চালকলের ভাড়াটিয়া মালিক ও কর্মচারিরা পালিয়ে যায়।

ওই চালকলের গুদামের ভিতর মজুদ করা খাদ্য অধিদপ্তরের ছাপানো ২০২০ / ২০২১ সালের ২১৪টি চটের বস্তায় থাকা ১০ হাজার ৭ শ’ কেজি চাল ঢেলে প্লাস্টিক বস্তায় রি-প্যাক করা হচ্ছিল। ভ্রাম্যমাণ আদালতের জব্দ করা ৫০ কেজি ওজনের ২১৪ বস্তা চাল রাতেই আদমদীঘি থানা পুলিশ হেফাজতে নিয়েছেন। সরকারি ক্রয় মূল্য হিসাবে জব্দ করা চালের মূল্য ৪ লাখ ২৮ হাজার টাকা।