আমরা দরিদ্র জাতি নইঃপরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত: ৩:২২ অপরাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০২২

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, এখন আমরা দরিদ্র জাতি নই। শক্তিশালী নেতৃত্বের মাধ্যমে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমাদের পরিচিতি হয়েছে। দেশের যে উন্নয়ন হয়েছে, তাকে টেকসই করতে হবে, ধরে রাখতে হবে। দেশের বৃহত্তর উন্নয়নের জন্য জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন।

১৯ মার্চ দুপুরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান অডিটোরিয়ামে পরিসংখ্যান বিভাগের ৫০ বছর পূর্তি উৎসবের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, একটা সময় বাংলাদেশের কিছুই ছিল না। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে স্বাধীনতা অর্জনের মাধ্যমে অধিকার আদায় করেছি। এরপরও বিভিন্ন সেক্টরে শোচনীয় অবস্থা ছিল। তবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শোচনীয় অবস্থা থেকে বের হয়ে, বাংলাদেশ বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ ইতিবাচক পরিবর্তনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার হার উল্লেখ্যযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ, সরকার শিক্ষা সেক্টরকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। গড় আয়ু বেড়েছে এবং আর্থ সামাজিক সুরক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার অনেক দেশকে পেছনে ফেলেছে। শান্তি ও উন্নয়নের সূচকে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ঊর্ধ্বমুখী। এই সফলতা ধরে রাখার জন্য সকলকে একসঙ্গে চলতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেন, দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে জাবির শিক্ষার্থীরা সুনামের সঙ্গে কাজ করছেন। গর্বিত, কারণ তার সংসদীয় এলাকায় এ বিশ্ববিদ্যালয়টি সগৌরবে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলাদা নজর রয়েছে। তিনি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসন সংকট নিরসনসহ নানা উন্নয়ন করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম বলেন, দেশের প্রতিটি সেক্টরেই পরিসংখ্যানবিদদের অবদান রয়েছে। আশা করি, দেশের উন্নয়নে তারা আরও বেশি অবদান রাখবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের শিক্ষার উন্নয়নে সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি জাবির উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে তার অবদান আমরা আজীবন মনে রাখার মত।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, জাবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক কাজী সালেহ আহমেদ, গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. অজিত কুমার মজুমদার, পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক ও ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মোহা. মুজিবুর রহমান, পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ আলমগীর কবীর প্রমুখ।