ঋণের কিস্তির চাপে ধান ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত: ৫:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ১, ২০২১

আহসান হাবিব শিমুল (আদমদীঘি প্রতিনিধি)

বগুড়ার আদমদীঘিতে এনজিও এবং ব্যক্তি পর্যায়ের ঋণের কিস্তির টাকা পরিশোধ করার পর্যায়ক্রমিক চাপে এনামুল হক (৫৫) নামের এক ধান চাল ব্যবসায়ী বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। নিহত এনামুল হক উপজেলার নসরতপুর ইউনিয়নের পুশিন্দা গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে।

জানা গেছে, পুশিন্দা গ্রামের সরদারপাড়ার এনামুল হক বেশ কয়েকজন ব্যক্তি এবং হাফ ডজন জাতীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ের এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে ধান-চাল ব্যবসা করে আসছিল। করোনায় ব্যবসা মন্দা যাওয়া এবং লোকসান হবার কারনে তিনি ঠিক মতো কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে পারতেন না। বেশ কয়েকদিন ধরে ওই সব এনজিওর মাঠকর্মী এবং ব্যক্তি পর্যয়ের পাওনাদাররা কিস্তির টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ এবং গ্রামে হৈচৈ শুরু করে। এনিয়ে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এনামুলর মানসিক চাপে পড়ে। তার মধ্যে হতাশা এবং ঘৃণা তৈরি হয়। এর এক পর্যায়ে মঙ্গলবার ভোরে পরিবারের সকলের অজান্তে গ্যাস ট্যবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে ছটফট করতে শুরু করে। পরিবার পরিজন ঘটনা জানতে পেরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাবার সময় পথেই তার মৃত্যু হয়।

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্য জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে রফিকুল ইসলাম বাদী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছে।