এনআইডি কার্ড রক্ষাকবচ হয়ে গেছে, কোনো গাফিলতি করা যাবে না: সিইসি

প্রকাশিত: 12:01 PM, May 21, 2020

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) এখন জনগণের রক্ষাকবচ হয়ে গেছে। এনআইডি সেবা নিয়ে কোনও গাফিলতি করা যাবে না। এই সেবা চালু না থাকলে স্থবির হয়ে পড়তো ব্যাংকিং ব্যবস্থা। করোনায় সহায়তা দেওয়া সম্ভবত হতো না। বললেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা।

কার্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএস) নিয়ে বুধবার (২০ মে) কর্মকর্তাদের অনলাইনে প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্বোধনের সময় কর্মকর্তাদের উদ্দেশ করে তিনি এসব কথা বলেন ।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বলেন, সারাবিশ্বে সব অফিস যখন বন্ধ, নির্বাচন কমিশন তখন এনআইডি সেবা দিচ্ছে। ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন ইসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

তিনি বলেন, শুধু নিজেদের কাজ নয়, সরকারি ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের সঙ্গেও সম্পৃক্ত রয়েছেন। জাতীয় পরিচয় পত্রের কারণে সরকারি অনুদান বিতরণে দুর্নীতি রোধ করা সম্ভব হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচনী সংবিধান অনুযায়ী জাতীয় সংসদের শূন্য আসনে উপ-নির্বাচন ৯০ দিনের মধ্যে করার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের মধ্যে নির্বাচন করা সম্ভব না হলে সংবিধানিক ক্ষমতাবলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে ভোট করতে পারেন। আর যদি এই সময়ের মধ্যেও নির্বাচন অনুষ্ঠানের সম্ভব না হয় তাহলে নির্বাচন কমিশন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে পরামর্শ করে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করতে পারে।

রাষ্ট্রপতির কাছে কবে যাবেন সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন কমিশন বসে এই বিষয়ে আলোচলা করবো। আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করবো। আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে যাবো সম্ভবত ঈদের পর।

সিইসি বলেন, ‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠানের সময় নির্ধারণ করে সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগ। তারা যেভাবে বলবে নির্বাচন কমিশন সেভাবে নির্বাচন করবে।