করোনা মোকাবিলায় ড্রোনের মাধ্যমে মেডিকেল সরঞ্জাম ব্যক্তি দোরগোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে আমেরিকা

প্রকাশিত: 12:13 AM, May 29, 2020

প্রতীকী ছবি প্রযুক্তি খাতে  ড্রোনের ব্যাবহার অনেক পূর্বে শুরু হয়েছে। এবার ড্রোনের উপকারিতা পাওয়া যাবে স্বাস্থ্য খাতেও   

নিকটবর্তী একটি কেন্দ্র থেকে ড্রোনে মেডিক্যাল সরঞ্জাম ভরা হবে। পরে প্যারাস্যুটের মাধ্যমে নির্দিষ্ট স্থানে পণ্যগুলো নামানো হবে। ঘন্টায় সর্বোচ্চ ৮০ মাইল বেগে ১.৮ কেজি পর্যন্ত পণ্য বহন করতে পারবে ড্রোনগুলো।

এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (এফএএ) অনুমতির ফলে নির্দিষ্ট দুইটি রুটে ড্রোন ব্যবহারের অনুমোদন পাবে প্রতিষ্ঠানটি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবারই প্রথম দৃষ্টিসীমার বাইরে ড্রোন সরবরাহ সেবার অনুমতি দিয়েছে এফএএ– খবর বিবিসি’র।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা মহামারী ঠেকাতে ড্রোন ফ্লাইটের ক্ষেত্রে কিছু নীতিমালা শিথিল করতে সহায়তা করবে।

এফএএ’র সঙ্গে দর কষাকষি চলছিলো জিপলাইনের। পরিধি বাড়িয়ে অন্যান্য হাসপাতাল এবং সবশেষে মানুষের বাড়িতেও ড্রোনের মাধ্যমে সরবরাহের পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির যাওয়া আসা মিলে ৪৮ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেওয়ার অনুমোদন পেয়েছে জিপলাইনের ড্রোন।

এই সেবার অংশীদার নোভান্ট হেলথ-এর প্রধান ডিজিটাল কর্মকর্তা অ্যাঞ্জেলা ইওচেম বিবিসির বরাত দিয়ে বলেছেন,”কোভিড-১৯ মহামারী আমাদেরকে জটিল চ্যালেঞ্জের আরও দ্রুতগামী এবং উদ্ভাবনী সমাধান বের করতে সহায়তা করেছে।”

মহামারীতে ড্রোনের মাধ্যম চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ শুরু হয়েছে আয়ারল্যান্ড এবং যুক্তরাজ্যসহ অন্যান্য দেশেও।