করোনা শূন্য নিউজিল্যান্ড!

প্রকাশিত: 1:07 AM, May 28, 2020

করোনা ভাইরাসের বিশ্বব্যাপী মহামারীতে নিউজিল্যান্ড নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। টানা ৫ম দিনে দেশটিতে কোন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়নি। প্রাদুর্ভাব শুরুর সঙ্গে সঙ্গে লকডাউন জারির পর এই প্রথম দেশটির কোনো হাসপাতালে একজনও কোভিড-১৯ রোগী চিকিৎসাধীন নেই। দেশটি কর্তৃপক্ষ এমন তথ্য জানিয়েছে। এখানে উল্লেখ্য যে ভিয়েতনাম ও এমন কৃতিত্ব দেখিয়েছিল পূর্বে।    

আপাতত করোনা শূন্যের ঘোষণা দিলো নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক ডা. অ্যাশলে ব্লোমফিল্ড।

মঙ্গলবার (২৬ মে) রাতে সবশেষ সুস্থ হওয়া ব্যক্তিকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে।দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক ডা. অ্যাশলে ব্লোমফিল্ড কোভিড-১৯ আপডেটে জানান, সবশেষ যে ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন গতরাতে তাকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। এর মানে হচ্ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কেউ হাসপাতালে ভর্তি নেই।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৫০৪। মারা গেছে ২১ জন; সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৬২ জন। ১৪ মার্চ যখন দেশটিতে মাত্র ছয়জন রোগী শনাক্ত হয়েছিল তখনই প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ড আর্ডার্ন ঘোষণা দেন, নিউজিল্যান্ড ভ্রমণে যারা আসবেন তাদেরকে বাধ্যতামূলক দুই সপ্তাহের সেল্ফ আইসোলেশনে (সঙ্গ নিরোধ) থাকতে হবে। ১৯ মার্চ পর্যটকের জন্য নিউজিল্যান্ডে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। এ দিনে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৮ জন। ২৩ মার্চ দেশজুড়ে সম্পূর্ণ লকডাউন (অবরুদ্ধ) ঘোষণা করা হয়। সে পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে কোন মৃত্যু ঘটনা ঘটেনি তবে আক্রান্ত ছিলেন ১০২ জন। এরপর টানা প্রায় দুই মাস দেশ লকডাউন থাকার পর গত ১৪ মে থেকে ধীরে কিছু ব্যবসা কেন্দ্র ও জনসমাগমস্থল খুলে দিতে শুরু করে সরকার।

এমন অনুকরণীয় পদক্ষেপের কারণেই করোনা শূন্যে অবস্থান করছে বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।