খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত

প্রকাশিত: ৮:২৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে জেলা প্রশাসন,জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি,সনাক-টিআইবি ও দুর্নীতি দমন কমিশম’র যৌঘ আয়োজনে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার(৯ডিসেম্বর)সকালে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট’র প্রাঙ্গণে এ দিবসটির উপলক্ষে জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পরপরে সংক্ষিপ্ত আকারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।পরে অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।এ সময় জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সুদর্শন দত্ত’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস।এতে প্রতিপাদ্যের বিষয় ছিল,”আপনার অধিকার,আপনার দায়িত্ব,দুর্নীতিকে না বলুন”।

আলোচনা সভায় মো: জসিম উদ্দিন মজুমদার’র সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন,একটা সময় দুর্নীতি সূচকের আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বাংলাদেশর পরিমাণ অবস্থান ছিল,সেটা বর্তমান সরকারের কিছু যুগোপযোগী, বাস্তবসম্মত এবং দুর্নীতি বিরোধী প্রচেষ্টায় আজ দুর্নীতি কমে আসছে।

তিনি বলেন,আমাদের উন্নয়ন সূচক বলছে যে, আমরা উন্নতি করছি।দুর্নীতির যে ব্যাপক প্রভাব সেটাকে আমরা রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে কিংবা ব্যক্তিগত পর্যায়ে কমাতে সক্ষম হচ্ছি।বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর,এইকারণে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে ২০০৯সালে তথ্য অধিকার আইনটি করেছেন।যে প্রতিষ্ঠানের তথ্যের যেখানে অপ্রতুলতা থাকে,যেখানে তথ্যের প্রভাব বিস্তৃত হয়না,সেখানেই দুর্নীতি একেবারে ঝেঁকে বসে।
এখন যেকোন ব্যক্তি,যেকোন প্রতিষ্ঠানে কি ধরনের উন্নয়ন কাজ হচ্ছে,সেসব তথ্য চাইলেই তথ্য দিতে বাধ্য।তাহলে এই তথ্যের প্রবাহটা নিশ্চিত হলে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে দুর্নীতি করাটা অনেক কঠিন হয়ে যাবে।যেকোন প্রতিষ্ঠান দুর্নীতি করার সাহজ পাবেনা। দুর্নীতি অনেকাংশে কমে যাবে।আজকের এই দিনে প্রত্যয় হোক,আমরা যারা আছি,সরকারি কর্মচারী হোক,রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হোক,নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হোক,সকলের প্রচেষ্টায় এই দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।এটি আরো বেগবান হবে,আমরা অচিরেই দুর্নীতি মুক্ত একটি দেশ পাবো বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: মনিরুজ্জামান,দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক জি.এম আহসানুল কবির,সনাক সদস্য মো: জহুরুল আলম।
এছাড়াও খাগগড়াছড়ি সনাকের এরিয়া কো-অর্ডিনেটর মো:আবদুর রহমান,বিভিন্ন সরকারি-বেসররকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও ইয়েস-ইয়েস ফ্রেন্ডস সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত;আজকের প্রতিপাদ্যের বিষয় ছিল”আপনার অধিকার,আপনার দায়িত্ব,দুর্নীতিকে না বলুন”।জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস ৯ ডিসেম্বর পালনের লক্ষ্যে দুর্নীতি দমন কমিশন সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেয়। জাতিসংঘ ২০০৩ সালে ৯ ডিসেম্বরকে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। দুর্নীতি দমন কমিশন ২০০৭ সাল থেকে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালন শুরু করে। দুর্নীতি দমন কমিশন প্রতি বছর দিবসটি পালন করলেও দেশে সরকারিভাবে দিবসটি পালিত হতো না। এ প্রেক্ষাপটে দুর্নীতি দমন কমিশন ০৯ ডিসেম্বরকে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী  দিবস পালনের অনুরোধ জানিয়ে ২০১৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে পত্র প্রেরণ করে। তারপ্রেক্ষিতে সরকার ১৮ জুলাই, ২০১৭ তারিখে ০৯ ডিসেম্বর তারিখকে “আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস” ঘোষণা করে। পাশাপাশি ০৯ ডিসেম্বরকে “আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস”হিসেবে উদযাপনের লক্ষ্যে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালন সংক্রান্ত পরিপত্রের ‘খ’ শ্রেণীভূক্ত দিবস হিসেবে অন্তর্ভূক্তকরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। কমিশন মনে করে, দিবসটি সরকারিভাবে পালন করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের দৃঢ় অবস্থান আরও সুস্পষ্ট ও সুদৃঢ় হয়েছে।