খাগড়াছড়িতে এনসিটিএফ’র বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৪:০১ অপরাহ্ণ, মে ১৬, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

এনসিটিএফ(National Children’s Task Force) পেরাছড়া ইউনিয়ন শাখা’র আয়োজনে ওয়াই মুভস প্রজেক্ট,জাবারাং কল্যাণ সমিতি কর্তৃক বাস্তবায়নে ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র কারিগর সহায়তায় এবং সিডা’র অর্থায়নে বার্ষিক সাধারণ সভা -২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে।সোমবার(১৬মে)সকাল ১১টায় পল্টন জয় পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে এ বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।এ সময় এনসিটিএফ পেরাছড়া ইউনিয়ন শাখা’র সভাপতি জবা ত্রিপুরা’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডে সদস্য নিলাংকুর ত্রিপুরা।

বার্ষিক সাধারণ সভায় হেল্পি ত্রিপুরা ও ঝর্ণা ত্রিপুরার সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রুদ্র ত্রিপুরা।

সভায় বক্তারা বলেন,কিশোর-কিশোরীদের নিরাপদ জীবন,আনে সামাজিক উন্নয়ন।এই স্লোগানে মর্মতা অনেক গভীর।আমাদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ার জন্য অনেকগুলো সুযোগ সুবিধা রয়েছে।সুখী পরিবারের কল সেন্টার-১৬৭৬৭।বাল্য বিবাহ রোধ করার জন্য ১০৯ নাম্বারে কল করে তোমাদের ঠিকানা দিলেই প্রশাসনের লোক তোমার বাড়িতে চলে আসবে।বাল্য বিবাহ পরিকল্পনা রোধ করার জন্য ১০৯নাম্বার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।আমরা এই বিষয়ে না জানলে হবেনা।আমাদের সকলকে এই বিষয়ে জানতে হবে।এই না জানাকে জানানোর জন্যই আমরা এখানে এসেছি।কৈশোরীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,তোমরা নিশ্চয় পড়েছো নলেজ ইজ পাওয়ার(Knowledge is Power) যার বাংলা অর্থ জ্ঞানই শক্তি।Information is power। Information ও একটি জ্ঞানের শক্তি।এই দুটি বাক্য ছোট হলেও,এটি আমাদের সকলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।মায়ের গর্ভে ভ্রুণরূপে জন্ম ও মৃত্যুর মাঝখানে মানব জীবন। এটি প্রথমে থাকে বিকাশমান এবং পরে হয় ক্ষীয়মান। ভ্রুণ থেকে শুরু করে ২৩-২৫ বছর বয়স পর্যন্ত ঘটে ক্রমবিকাশ এবং তারপর থেকে ক্রমক্ষয়, যার পরিণতি মৃত্যু।মানব জীবনকে মোটামুটি ৬ কালে ভাগ করা যায়-(১) ভ্রুণ (২) শৈশব, (৩) কৈশোরকালীন ও বয়ঃসন্ধি (৪) যৌবন, (৫) প্রৌঢ় ও (৬) বার্ধক্য কাল। সুস্থ সুন্দর জীবন যাপন এবং দীর্ঘায়ু লাভের জন্য প্রতিটি কাল সম্মন্ধে জানা এবং সচেতন থাকার গুরুত্ব অপরিসীম। এখানে অবহিতকরণের বিষয় মানব জীবনের তৃতীয় ধাপ- কৈশোরকালীন প্রজনন ও বয়ঃসন্ধিকাল।

সভায় বক্তারা বাল্যবিবাহ রোধের বিভিন্ন ধরনের ধরনের পদ্ধতি সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাবারাং কল্যাণ সমিতি’র ওয়াই মুভস প্রকল্পের(প্রজেক্ট) প্রকল্প অফিসার দোলন দাশ,পার্বত্য নিউজের জেলা প্রতিনিধি ও ডিস্ট্রিক ভলান্টিয়ার (ডিভি) খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,এনসিটিএফ’র পেরাছড়া ইউনিয়ন শাখা’র সহ-সভাপতি রুদ্র ত্রিপুরা প্রমুখ।

এছাড়াও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের ভলান্টিয়ার কেমি ত্রিপুরা,ম্রাসাইন্দা মারমাসহ স্থানীয় কিশোর-কিশোরী,অভিভাবক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।