খাগড়াছড়িতে পানিবন্ধি প্রায় ৭০০পরিবার

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে টানা বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। বন্যায় খাগড়াছড়ি সদর, দীঘিনালা, মানিকছড়ি ও মহালছড়ি উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। সেখানে এখন ত্রাণ ও বিশুদ্ধ পানির সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার(২৪ আগস্ট)রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টা থেকে আজ ২৫ আগস্ট সকাল আনুমানিক সাড়ে ৭টা পর্যন্ত টানা বৃষ্টিতে জেলা শহরের প্রধান নদী চেঙ্গী ও দীঘিনালার মাইনী নদীর পানি উর্ধ্বগতির ফলে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিস,স্কুল-কলেজ,ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান,ঘর-বাড়িতে পানি ঢুকে যায়।

আজ বুধবার (২৫আগস্ট) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখতে পায়, জেলা শহরের শান্তিনগর,খবংপড়িয়া,অনন্ত মাস্টার পাড়া,রাজ্যমণি পাড়া, শব্দমিয়া পাড়া, গঞ্জপাড়া, মুসলিম পাড়া,বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে। সকাল থেকে বৃষ্টি না থাকলেও আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

উত্তর গঞ্জপাড়ার বাসিন্দা বাদশাহ মিয়া বলেন, আজকে আমার ঘর-বাড়ি পানিতে বন্ধি কোনোরকম প্রাণে বেঁচেয়ছিলাম। ঘরের আসবাবপত্র, খাদ্যসামগ্রীসহ পানিতে তলিয়ে গেছে।

টানা বৃষ্টিতে পানিতে জেলা সদরের প্রায় ৬শ থেকে ৭শ এর অধিক পরিবার পানিবন্ধি হয়ে পড়ে।
জেলা সদের দক্ষিণ গঞ্জপাড়ার বাসিন্দা ও দোকানী কোহিনূর বেগম প্রতিবেককে বলেন, আজকের টানা বৃষ্টিতে আমার পুরো ঘর ও দোকান ঘর পানিতে ঢুবে গেছে। বন্যা প্লাবিত হওয়ায় ক্ষতি হয়েছে ঘরের আসবাবপত্র, খাদ্যসামগ্রী।

বন্যার ব্যাপারে খাগড়াছড়ি পৌরসভার প্যানেল মেয়র পরিমল দেবনাথ প্রতিবেদককে মুঠোফোনে জানান পরিস্থিতি বিষয়ে তাৎক্ষণিক আমরা পৌরসভায় জরুরী বৈঠকে বসে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য কি ব্যবস্থা যায় সেই সিদ্ধান্ত নিচ্ছি।