খাগড়াছড়িতে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্ণামেন্ট চ্যাম্পিয়ন সূর্য শিখা ক্লাব

প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৯, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি।

খাগড়াছড়িতে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টু্র্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড অর্থায়নে খাগড়াছড়ি ক্রীড়া সংস্থার আয়োজিত বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্ণামেন্ট-২০২১ এর ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার(৯অক্টোবর)বিকাল ৪টায় ঐতিহাসিক স্টেডিয়ামে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।এতে অংশ গ্রহণ করেন করেন ২টি দল,সূর্য শিখা ক্লাব ও সালকাতাল। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ন সম্পাদক আজহার হীরার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা বলেন,খেলায় হার-জিত থাকবেই চ্যাম্পিয়ন দল সূর্য শিখা ক্লাবকে জানাই অভিনন্দন এবং রানাপ আপ সালকাতাল ক্লাবকেও অভিনন্দন।
তিনি আরো বলেন,খেলাধুলায় দক্ষ হয়ে আরো অনেক দূর এগিয়ে নেয়ার জন্য যা যা সহযোগিতা দরকার উন্নয়ন বোর্ডে হাত সবসময় প্রসারিত থাকবে।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ,পৌর মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী।সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা প্রমুখ।

আবদুল আজিজ,পৌর মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী।সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস,সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মোঃ শানে আলম ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা প্রমুখ।

এদিন ফাইনাল খেলায় সালকাতাল ক্লাবকে ২-১গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে সূর্যশিখা ক্লাব চ্যাম্পিয়ন হয়।রানার আপ সালকাতাল ক্লাব।পরে চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক কনাল ত্রিপুরার হাতে ১লক্ষ টাকার প্রাইজমানি ও ট্রফি পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।রানার আপ দলকে ৫০হাজার টাকা প্রাইজমানি ও ট্রফি তুলে দেয়া হয়।সেরা গোলদাতা দুই জন নির্বাচিত মো: শফিক ও মো: কায়েস, টুর্ণামেন্টের সেরা খেলোয়ার নির্বাচিত হয়েছেন অম্লান ত্রিপুরা।

খেলায় উপ-যুবপ্রধান-১ মো: ইব্রাহিম খলিল”র নেতৃত্বে মেডিকেল টিম ও স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব পালন করেন খাগড়াছড়ি যুব রেড-ক্রিসেন্টের ৬জন যুব সদস্য।

খেলায় ৪জন রেফারির দায়িত্ব পালন করেন।এতে রেফারি পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন নিখিল কুমার দেঅংসা মারমা,সাচিংনু মারমা(কেরো) ও পুলক কুমার দে।