খাগড়াছড়িতে বিএনপি’র অবরোধে বিপাকে পর্যটকেরা

প্রকাশিত: ১০:৪৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ৭, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক সংসদ ওয়াদুদ ভূইয়াকে হত্যা চেষ্টা, গাড়ি-বাড়ি ভাংচুর ও পুলিশ মামলা গ্রহণ না করার প্রতিবাদে বিএনপির ডাকা ২৪ ঘন্টার অবরোধ চলছে। মঙ্গলবার ৭জুন সকাল ৬টা থেকে আগামীকাল ৮জুন সকাল ৬টা পর্যন্ত এ অবরোধ চলবে।বিএনপি’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট খাগড়াছড়ি জেলা শাখা’র কর্তৃক এ অবরোধ ডাকা হয়।ভোর ছ’টা থেকে হরতাল শুরু হলেও শহরের রাস্তায় বিএনপি নেতাকর্মীদের তৎপরতা তেমন একটা দেখা যায় নি বেশ কয়েকটি স্থান ছাড়া।

বিপাকে পড়েছে ঢাকা-নওগাসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা পর্যটকেরা । অনেকে রাস্তার পাশে দলবেঁধে বসে মোবাইলে গেইমস খেলে অলস ও বিরক্তিকর সময় পার করে দিচ্ছেন।অনেকে আবার রাস্তার পাশে বসে বসে বন্ধদের কাঁধে হেলান দিয়ে ঘুমিয়ে বিশ্রাম নিচ্ছেন।

সকালের দিকে জেলা শহরের মহাজন পাড়া এলাকায় প্রদান সড়কে বিএনপির সমর্থকেরা টায়ার জ্বালিয়ে ও গাছের ডাল ফেলে গাড়ি চলাচলের বিঘ্নতা সৃষ্টি করা হয়।তাৎক্ষনিক পুলিশ সেখানে গেলে অবরোধ সমর্থকেরা পালিয়ে যায়। পরে কর্তব্যরত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীরা আগুন নিভিয়ে,গাছের ডাল সরিয়ে চলাচলের ব্যবস্থা করে দেয়া হয়।

এ অবরোধে সকালে জেলা শহরের স্বনির্ভর এলাকা,বাস স্টেশন,চেঙ্গী স্কয়ার বেশকিছু স্থানে পাবলিক বাস অর্থাৎ বিভিন্ন ধরণের যানবাহন চলাচল তেমন দেখা যায় নি।তবে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে কিছু সংখ্যক টমটম(অটো) ও বিভিন্ন স্কুলের পরীক্ষার্থীদের বহন করা ছোটখাটো যানবাহনে যাতায়াত দেখা যায়। এ চলমান অবরোধের মাঝেও কর্মস্থল খোলা থাকায় বের হতে হচ্ছে কর্মজীবী মানুষদের।পায়ে হেঁটে নিজ নিজ কর্মস্থলে যেতে হচ্ছে।

বরাবরের মতই শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অবস্থান করতে দেখা যায়।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক মোঃ ইসমাইল প্রতিবেদককে জানান,আমরা আসলেই জানতাম না,খাগড়াছড়িতে আজকে বিএনপি’র হরতাল/অবরোধ আছে।আমাদেরকে কাউন্টার থেকেও বলা হয়নি রাতে গাড়িতে উঠার সময়।আজ ভোরে আমাদেরকে নামিয়ে দিয়ে ড্রাইভাররা আমাদেরকে বলেন আজ অবরোধ।আমাদের গাড়ি আর কোথাও যাবেনা।এরপর থেকে আমরা বিপাকে পড়ি।আমরা এখন গাড়ি পাচ্ছিনা,আমরা এখন খুবই দূর্ভোগের মধ্যে আছি।আমাদের টিমে ৪০জনের অধিক এখন রাস্তার পাশে বসে বসে বিরক্তিকর সময় পার করতে হচ্ছে।আর আমাদের বিভিন্ন কাজকর্ম থাকার কারণে পূর্ব থেকে অফিস থেকে ৩দিনের ছুটি নিয়ে সাজেকে অবস্থান করার জন্য অগ্রিম পেমেন্ট দিয়ে হোটেল /কটেজ বুকিং করে রেখেছিলাম। যদি আমরা আজ সাজেকে যেতে না পারি,তাহলে আমাদের অনেক লোকসান গুণতে হবে।

আরিফ হোসেন নামে এক পর্যটক জানান,আমরা ৫জন রাতে ঢাকা থেকে সাজেকে যাওয়ার জন্য খাগড়াছড়িতে আসি।ভোর ৪টায় আমরা এ শাপলা চত্বরে এসে পৌঁছে যায়। গাড়ি থেকে নামার পরে আমরা জানতে পারি যে,আজ বিএনপি’র হরতাল-অবরোধ ছিলো।আমরা আগে থেকে এ ব্যাপারে জানলে আমাদেরকে এমন দূর্ভোগে পড়তে হতোনা।এখন আমাদেরকে কোন যানবাহন নিতে চাচ্ছেনা।আমরা এখন অনেক বিপাকে পড়েছি।