খাগড়াছড়িতে বৈ-সা-বি’র বর্ণিল শোভাযাত্রা

প্রকাশিত: ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

দুই বছরের করোনা নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এবার নানা আনুষ্ঠানিকতায় শুরু হয়েছে খাগড়াছড়ি পার্বত্যাঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান বৈ-সা-বি উৎসব।চৈত্র সংক্রান্তি ও বর্ষবরণকে ঘিরে পাহাড়ি জেলা খাগড়াছড়ি এখন উৎসবের নগরী। বৈসাবিকে ঘিরে শোভাযাত্রা,নাচ-গানসহ চলছে নানা আয়োজন।

বৈসাবি উৎসবে মেতেছে পাহাড়ের মানুষ।বৈসু,বিজু, সাংগ্রাই, বিহু, বিষু, নববর্ষ নানা নামে ভিন্ন ভিন্ন উৎসবকে একত্রে বৈ-সা-বি উৎসব হিসেবে পালন করেন পাহাড়ী জনগোষ্ঠীর মানুষেরা । মূলত চৈত্রের শেষদিন ও নববর্ষ বরণ উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হলেও এর রেশ থেকে যায় পক্ষকাল।

মঙ্গলবার (১২এপ্রিল) সকালে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত বর্ণিল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে বৈ-সা-বি উৎসব শুরু হয়েছে।

এতে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মানুষ তাদের ঐতিহ্যবাহী পোশাকে অংশ নেন।জেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে পাহাড়ের ত্রিপুরাদের ঐহিত্যবাহী গরয়া নৃত্য পরিবেশনের পরপরেই বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শুরু হয়।এর মধ্য দিয়ে শুরু হয় বৈ-সা-বি।

এ উপলক্ষে শোভাযাত্রায় শোভা পাচ্ছে পাহাড়ী পোশাক, গহনা ও নানা রকম খাবারের সমাহার। দুই বছর পর এমন উৎসবে ফের সামিল হতে পেরে উচ্ছ্বসিত তরুণ-তরুণীরা।

সম্প্রীতি বাড়ানো ও দেশের অগ্রযাত্রায় সামিল হওয়ার প্রত্যাশা জানালেন ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স’র চেয়ারম্যান(প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি । তিনি বলেন, পার্বত্যাঞ্চলের সকল জনগোষ্ঠী যাতে সম্প্রীতির মাধ্যমে বসবাস করতে পারে, সে লক্ষ্যে একটা পরিবেশ সৃষ্টি করা।বর্তমান সরকার এই পার্বত্যঅঞ্চলের প্রতি আন্তরিক।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, আজকের উৎসব সকল সম্প্রদায়ের। একটি সুখী ও সমৃদ্ধি বাংলাদেশ গঠনের পথে আমাদের সকলকে নিয়ে সামনে এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।  
যুগ যুগ ধরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষের প্রচলিত কৃষ্টি সংস্কৃতিকে তুলে ধরতেই এমন আয়োজন বলে জানান খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি বাসন্তী চাকমা, জেলা পুলিশ সুপার মোঃ আবদুল আজিজ,সদর জোন কমান্ডার ও পিএসসি লেঃ কর্ণেল সাইফুল ইসলাম সুমন,সদর দপ্তর খাগড়াছড়ি রিজিয়ন(জিএস-২ আই),ওএসপি মোহাম্মদ জাহিদ হাসান,জেলা সিভিল সার্জন নুপুর কান্তি দাশসহ বিভিন্ন সরকারি -বেসরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।