খাগড়াছড়িতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে ইসলামী আন্দোলনের মানববন্ধন

Jahid Jahid

Hasan

প্রকাশিত: ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি।

দেশের সকল কার্যক্রম চলমান থাকলেও সরকার করোনার অজুহাতে দুটি শিক্ষাবর্ষে দীর্ঘ ৪৪৩ দিন সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে। এতে করে শিক্ষার্থীরা অসামাজিক কার্যকলাপ সহ বিভিন্ন মাদক, ইয়াবা ও শিশু ধ্বংসাত্মক গেইমস,ধ্বংসাত্মক ডিভাইসের সাথে জড়িয়ে যাচ্ছে। চোখের সামনে শিক্ষার্থীদের এমন বিপর্যয় মেনে নেওয়া যায় না।

আজ বৃহস্পতিবার (৩ মে২০২১খ্রি:) সকাল ১০.০০ টায় খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাবের সামনে ইসলামী আন্দোলন খাগড়াছড়ি জেলা শাখা’র উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

এসময় বক্তারা আরো বলেন, আমরা আমাদের শিক্ষাজীবন থেকে দুটি বছর হারিয়েছি।সরকার অন্যান্য ক্ষেত্রে যথাযথ ব্যবস্থা নিলেও শিক্ষাক্ষেত্রে আজ অবধি কোন ব্যবস্থা নেয় নি। আমরা বারবার আবেদন করলেও কর্ণপাত করছে না। দেশের সকল শিক্ষার্থীরা নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বীগ্ন এবং অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়েই তারা দিনাতিপাত করছে। তাই তিনি কর্তৃপক্ষের নিকট অতিদ্রুত স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার জোরালো দাবি জানান।

এসময় ইশা ছাত্র আন্দোলনের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা বক্তব্যে বলেন, বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থা ক্রমেই নাজুক অবস্থায় যাচ্ছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে দেশের সীমাহীন ক্ষতি হবে। যা কোনভাবেই কাটিয়ে উঠা সম্ভব হবে না। যেখানে শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড, অথচ সেই মেরুদণ্ড নিয়ে দেশের উচ্চ মহলের কোন মাথা ব্যাথা নেই।উচ্চ পর্যায়ের লোকেরা শুধু লাভজনক ক্ষেত্রগুলো নিয়েই ভাবে। শিক্ষার্থীদের নিয়ে তার একটুও ভাবনা নেই। করোনার কারনে শিক্ষার্থীদের এই বিশাল ক্ষতিপূরণে নেই যথাযথ ব্যবস্থা। তাই তিনি শিক্ষামন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন,অতিদ্রুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিন, নতুবা আমরা আরো কঠিন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

ইশা ছাত্র আন্দোলন গুইমারা উপজেলা শাখার সভাপতি এস এম মহিউদ্দিন বলেন, ক্যাম্পাস না খোলার কারনে আমাদের অনেকেই শিক্ষাজীবন থেকে ছিটকে পড়ছে। তাদের এই ঝড়ে পড়া থেকে রক্ষা করতে অবশ্যই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলে দিতে হবে।