খাগড়াছড়ির মেয়ে আনাই মগিনী’র পায়ের জাদুতেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ১:২০ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৩, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ ভারত বনাম সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশ প্রমিলা ফুটবল ফাইনাল ম্যাচে ১গোলে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ প্রমিলা সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ এর মেয়েরা।
বুধবার(২২ডিসেস্বর)ফাইনাল ম্যাচে খাগড়াছড়ির মেয়ে আনাই মগিনী’র কৌশলগত ১গোলের বিনিময়ে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা ফুটবল সাফ চ্যাম্পিয়ন শীপে ভারত অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা দলকে হারিয়ে শিরোপা বিজয় বাংলাদেশ। সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশ-১ আর সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ ভারত -১।

জানা খাগড়াছড়ি জেলার মেয়ে আনাই মগিনী ও আনুচিং মগিনী যমজ দুই বোন।তারা দুজনই জাতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা ফুটবল দলের হয়ে খেলছেন।তারা দুজনই আজ এই চ্যাম্পিয়ন দলে খেলেছেন।মা-বাবা, চার বোন ও তিন ভাই নিয়েই তাদের বৃহৎ পরিবার।তাদের মা-বাবা দুজনই কৃষি কাজ করেন।এই বৃহৎ পরিবারের দুই ফুটবলার আনাই মগিনী এবং আনুচিং মগিনীযমজ বোনই এখন আশার প্রদীপ।

তথ্যানুযায়ী,২০১১সালে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্ণামেন্টের মধ্যদিয়েই আনাই মগিনীর ফুটবল খেলার সূচনা।এরপরে খাগড়াছড়ি জেলার ফুটবল দলের।হয়ে ২০১৫ সালে অনুর্ধ্ব-১৪ জাতীয় দলে জায়গা পাকাপোক্ত করে নেয়।এখন বিভিন্ন বয়স ভিক্তিক জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন তিনি।

পুরো ম্যাচের মোড় বাংলাদেশের অনুকূলে থাকলেও ভারতের জালে বল পাঠাতে বারবার ব্যর্থ ছিল বাংলাদেশ।কখনো বাংলাদেশের স্ট্রাইকার তহুরা খাতুনের আলতো পায়ের টোকাতে গোললাইন বিপদমুক্ত করছেন ভারতের ডিফেন্ডার,কখনো মগিনির ক্রস ফিরে এসেছে সাইডপোস্টের লেগে।
বারবার বল গোলপোস্টের বারে লেগে ফিরে আসার ফলে গ্যালারীভর্তি দর্শকের মন সংশয়ের ভারী হয়েছিল।ঠিক তখনি ৭৯ মিনিটে আনাইয়ের পায়ের স্পর্শে বল জালের ভিতরে।ঠিক তখনি মাঠভর্তি দর্শকেরা বিজয়োল্লাসে মেতে উঠে।পরে খেলা শেষে বিজয়োল্লাসে মাতোয়ারা হয়ে যায় পুরো বাংলাদেশ।বিজয়ের পরে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শ্রেনী ও পেশার মানুষেরা আনাই মগিনিকে শুভে্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন।খাগড়াছড়ির আনাই মগিনী’র পায়ের জাদুতেই চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ ভারত বনাম সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশ প্রমিলা ফুটবল ফাইনাল ম্যাচে ১গোলে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ প্রমিলা সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ এর মেয়েরা।
বুধবার(২২ডিসেস্বর)ফাইনাল ম্যাচে খাগড়াছড়ির মেয়ে আনাই মগিনী’র কৌশলগত ১গোলের বিনিময়ে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা ফুটবল সাফ চ্যাম্পিয়ন শীপে ভারত অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা দলকে হারিয়ে শিরোপা বিজয় বাংলাদেশ। সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশ-১ আর সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ ভারত -১।

জানা যায়,খাগঠাছড়ি জেলার মেয়ে আনাই মগিনী ও আনুচিং মগিনী যমজ দুই বোন।তারা দুজনই জাতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ প্রমিলা ফুটবল দলের হয়ে খেলছেন।তারা দুজনই আজ এই চ্যাম্পিয়ন দলে খেলেছেন।মা-বাবা, চার বোন ও তিন ভাই নিয়েই তাদের বৃহৎ পরিবার।তাদের মা-বাবা দুজনই কৃষি কাজ করেন।এই বৃহৎ পরিবারের দুই ফুটবলার আনাই মগিনী এবং আনুচিং মগিনীযমজ বোনই এখন আশার প্রদীপ।

তথ্যানুযায়ী,২০১১সালে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্ণামেন্টের মধ্যদিয়েই আনাই মগিনীর ফুটবল খেলার সূচনা।এরপরে খাগড়াছড়ি জেলার ফুটবল দলের।হয়ে ২০১৫ সালে অনুর্ধ্ব-১৪ জাতীয় দলে জায়গা পাকাপোক্ত করে নেয়।এখন বিভিন্ন বয়স ভিক্তিক জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন তিনি।

পুরো ম্যাচের মোড় বাংলাদেশের অনুকূলে থাকলেও ভারতের জালে বল পাঠাতে বারবার ব্যর্থ ছিল বাংলাদেশ।কখনো বাংলাদেশের স্ট্রাইকার তহুরা খাতুনের আলতো পায়ের টোকাতে গোললাইন বিপদমুক্ত করছেন ভারতের ডিফেন্ডার,কখনো মগিনির ক্রস ফিরে এসেছে সাইডপোস্টের লেগে।
বারবার বল গোলপোস্টের বারে লেগে ফিরে আসার ফলে গ্যালারীভর্তি দর্শকের মন সংশয়ের ভারী হয়েছিল।ঠিক তখনি ৭৯ মিনিটে আনাইয়ের পায়ের স্পর্শে বল জালের ভিতরে।ঠিক তখনি মাঠভর্তি দর্শকেরা বিজয়োল্লাসে মেতে উঠে।পরে খেলা শেষে বিজয়োল্লাসে মাতোয়ারা হয়ে যায় পুরো বাংলাদেশ।বিজয়ের পরে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শ্রেনী ও পেশার মানুষেরা আনাই মগিনিকে শুভে্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন।