খাগড়াছড়িতে কবিতা আবৃত্তি ও সাহিত্য প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ

প্রকাশিত: ৩:৪২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটের আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে “কবিতা ও সাহিত্য প্রতিযোগিতা’র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত।

সোমবার (৩০আগস্ট)সকাল ১০টায় খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে অনলাইন ভিক্তিক “কবিতা ও সাহিত্য প্রতিযোগিতা’র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬ তম শাহাদত বার্ষিকীর অনলাইন ভিক্তিক “কবিতা ও সাহিত্য প্রতিযোগিতা”-২০২১ উপলক্ষে মাতৃভাষায় রচনা প্রতিযোগিতা,কবিতা আবৃত্তি’র বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।রচনা প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ী প্রথম স্থান অর্জনকারীদের মধ্যে রয় ফাইরুজ হুমায়রা অহনা,শিমুল দেবনাথ,ইসরাত জাহান ইফতি,ইদোতি চাকমা,জেকি চাকমা,এম্রানু মারমা,সাচিংউ মারমা,অংনুপ্রু মারমা,সুদীপ্ত ত্রিপুরা,তয়া ত্রিপুরা।কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে ১ম স্থান অর্জনকারী ফাইরুজ হুমায়রা অহনা,অভিজিৎ সরকার,টিনা ত্রিপুরা পিকাই। এসময় ১ম,২য় ও ৩য় স্থান অর্জনকারী ও ৫জন বিশেষ পুরষ্কার প্রাপ্তসহ ৬৮ জন “কবিতা আবৃত্তি ও সাহিত্য পৃরতিযোগিতা”র বিজয়ীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজ নিজ প্রাপ্ত পুরস্কার অতিথিদের কাছ থেকে গ্রহণ করেন।

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,পার্বত্য জেলা পরিষদের আহ্বায়ক(সমবায় ও সাংস্কৃতি বিভাগ)ও সদস্য নিলোৎপল খীসা,সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মো: বশিরুল হক ভুঁঞা ও খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক জিতেন চাকমা,খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি প্রদীপ চৌধুরী,খাগড়াছড়ি জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহ-পরিচালক মো: জসীম উদ্দীন প্রমুখ।

এসময় পুরষ্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রত্যাশা চাকমার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে বলেন,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই দেশের একজন আদর্শ পিতা।তিনি বাংলাদেশ সুন্দর ও সুস্থ বাংলাদেশ বিনির্মাণে একজন আদর্শ কারিগর। শিশুরা শেখ মুজিবের আদর্শ কে লালন পালন করে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে,দেশের এবং দেশে মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করবে।আজকের শিশুরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ।নিজের মেধাকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।
এসময় অনুষ্ঠানের সূচনাতেই স্বাগত বক্তব্য দেন খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক জিতেন চাকমা প্রমুখ।