খাগড়াছড়ি জেলা তথ্য অফিস’র আয়োজনে শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ১০:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির জেলাস্থ কমলছড়ি ইউনিয়নের যাদুরাম পাড়া ও মঙ্গলচান পাড়ায় দুই ধাপে নারীও শিশু উন্নয়নে জেলা তথ্য অফিস কর্তৃক সচেতনতামূলক প্রচার কার্যক্রমের আওতায় এক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে যাদুরাম পাড়া রিসোর্স সেন্টারে প্রথম উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।পরে বিকালের দিকে অত্র ইউনিয়নের মঙ্গলচান পাড়ায় ২য় উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।এ সময় জেলা তথ্য অফিসার বাপ্পী চক্রবর্তী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলার সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো: জসিম উদ্দিন।

উঠান বৈঠকে জেলা তথ্য অফিসের উচ্চমান সহকারী রিপু খীসা’র সঞ্চালনায় উপস্থিত নারী ও শিশুদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা তথ্য অফিসার বাপ্পী চক্রবর্তী।

স্বাগত বক্তব্যে তিনি বলেন, শিশু ও নারী উন্নয়নে খাগড়াছড়ি জেলা তথ্য অফিস কর্তৃক সচেতনতামূলক প্রচার কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতার কোন বিকল্প নাই। এছাড়াও কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুকিঁ মোকাবেলায় সরকার মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে। সকলকে অবশ্যই মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের জন্য অনুরোধ জানান।
তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলা এবং এ প্রচার কার্যক্রমের আওতায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধ, করোনা টিকা গ্রহণ, জীবন তথ্য KHHP, নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ, শিশুকে মাতৃদুগ্ধদান, শিশুও নারীর অধিকার শিশুর যথাযথ বিকাশ, অটিজম ও শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য, জন্মনিবন্ধন, শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন, নারীর সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিসমূহ, পানিতে ডুবে শিশুরমৃত্যু প্রতিরোধ, পরিবেশ সুরক্ষা, নারীর সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিসমূহ, দূযোর্গকালীন নারী ও শিশুর সচেতনতা, জেন্ডার সমতা, নিরাপদ মাতৃত্ব, বাল্য বিাহ, ইভটিজিং, মাদক ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, ডেঙ্গু প্রতিরোধ, নিরাপদ সড়ক ইত্যাদি বিষয়ে প্রচার,সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে করোভাইরাস পরিস্থিতিতেও সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর বহুমূখী প্রচার কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে বলে তিনি জানান।

বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো: জসিম উদ্দিন বলেন,একটা জাতিকে উন্নতির চরম শিখরে পৌঁছাতে হলে শিক্ষা প্রয়োজন।শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারেনা।তাই শিশু,নারী ও পুরুষ সবাইকে শিক্ষা অর্জন করে,নিজেদের এদেশের গর্বিত ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা জরুরী।এর জন্য শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।শিক্ষা ব্যতীত কোন জাতি বা সমাজ এগিয়ে যেতে পারেনা।

তিনি শিশু ও নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনতা ব্যাপারে অধিকতর গুরুত্ব দেয়ার জন্য আহ্বান জানান।তিনি আরো বলেন,সরকার আমাদের টেক্স’র টাকায় শিশু ও নারীদের জন্য নানান বিষয়ে হেল্পলাইন এর সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে।বিনা পয়সায় শিশু ও নারীদের স্বাস্থ্য সেবা।বাল্যবিবাহ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ সেল গঠন করে দিয়েছে।২৪ঘন্টা এ সকল সেবা আপনারা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এবং নিঃকোচে নিতে পারবেন।তিনি আরো নানান বিষয়ের তথ্য উপস্থিত সকলের মাঝে আলোকপাত করেন।

পরে অন্যান্য বক্তারা শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতার প্রতি গুরুত্ব এবং সামাজিক বিভিন্ন ইস্যু সম্পর্কে বিস্তারিত আলোকপাত করেন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলার গণমাধ্যম কর্মী, সাংস্কৃতিক কর্মী ও টিএসএফ কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য-প্রচার সম্পাদক খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক।এছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কার্বারী বিহারী ত্রিপুরা,সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন কমলছড়ি ইউনিয়ন শাখার ত্রিপুরা স্টুডেন্টস্ ফোরাম(টিএসএফ)’র সহ-সভাপতি ও নারী সংগঠক ললিতা বৈষ্ণব ও সদর শাখার টিএসএফ তথ্য-প্রচার সম্পাদক ও যুব সংগঠক মিলন কান্তি ত্রিপুরাসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার নারী-পুরুষ ও শিশু কিশোরীরা উপস্থিত ছিলেন।