খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের আয়োজনে “কমিউনিটি পুলিশিং ডে “অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৪:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে জেলা পুলিশের আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে আলোচনা সভা,সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট বিতরণ করা হয়েছে।এতে প্রতিপাদ্যের বিষয় ছিল,মুজিববর্ষে পুলিশ নীতি,জনসেবা আর সম্প্রীতি।

শনিবার(৩০অক্টোবর)সকালে পুলিশ লাইন্স খাগড়াছড়ির ড্রিলশেড কক্ষে কমিউনিটি পুলিশিং ডে অনুষ্ঠিত হয়।আজকের এই অনুষ্ঠানের মূলনীতি ছিল,”শৃঙ্খলা,নিরাপত্তা ও প্রগতি”।এছাড়াও দেখা যায়,”অন্যায়ের প্রতিবাদে,পুলিশ জনতা একসাথে” “পুলিশ জনতা ভাই ভাই,জঙ্গিবাদের ঠাঁই নাই” “মাদককে না বলি,সুখী পরিবার গড়ি”।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার আবদুল আজিজ’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতীমন্ত্রী পদমর্যাদায়) ও এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মুহাম্মদ রশিদ।

কমিউনিটি পুলিশিং ডে অনুষ্ঠানে, ২০২১সালে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার ও শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যদের মাঝে সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।এসময় ১জন শ্রেষ্ঠ পুলিশিং অফিসার ও ১জন শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যের হাতে সম্মাননা স্বারক ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এতে নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার এসআই(নিরস্ত্র)সিপিও মোঃ সালেহ উদ্দিন ও শ্রেষ্ঠ কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য,জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সুদর্শন দত্তের হাতে সম্মাননা স্বারক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে জেলা সহকারী পুলিশ সুপার জিনিয়া চাকমা’র সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন,সারাদেশের যেকোন দুর্যোগের সময় কমিউনিটি পুলিশিং এর ভূমিকা অনন্য।তারা দেশের কল্যাণের জন্য,শান্তি ও সম্প্রীতির জন্য নিরলসভাবে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে।দেশের যেকোন ক্রান্তিকালে কমিউনিটি পুলিশ প্রত্যক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করেছে এবং করে যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন,সাম্প্রতিক সময়ে সারাদেশে বিভিন্ন জেলায় ধর্মান্ধ,উম্মাদ ব্যক্তিরা সহিংসতা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা এদেশের শান্তি চাই না,সম্প্রীতি চাইনা।প্রকৃত মুসলিম,প্রকৃত হিন্দু,প্রকৃত বৌদ্ধ ও খ্রিস্টানরা এই রকম উগ্রতা বিশ্বাস করেনা,এমন কাজ করতে পারেনা।যেকোন সাম্প্রদায়িক অপশক্তি,উগ্রতাদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাহিনী,সকল ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি এবং দেশের সকল সমাজ এগিয়ে আসতে হবে।যারা এদেশে শান্তি বিনষ্ট করতে চাইবে,তাদের বিরুদ্ধে সঠিক ব্যবস্থা নিতে সকলের প্রতি আহ্বান জানা।

এদেশকে স্বাধীন করার জন্য ২লক্ষ মা-বোনের ইজ্জত ও ৩০লক্ষ মানুষ শহীদ হয়েছে।তাদের এই আত্মত্যাগের বিনিময়ে আজ আমরা স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছি এবং বসবাস করছি।এদেশ হিন্দু,মুসলিম,বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সকলেরই দেশ।সকলেই এদেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছে।আমরা একসাথে এদেশে শান্তি,শৃঙ্খলা ও সম্প্রীতির বন্ধনের মধ্যদিয়েই বসবাস করব । ধর্ম,বর্ণ,নির্বিশেষে সকলকে ভালোবাসবো।সাম্প্রদায়িকতা ও উগ্রতার প্রতিরোধের জন্য আমাদের সবাইকে একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।সজাগ থাকতে হবে।

তিনি দেশের কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেন,করোনা মহামারীতে পুলিশের অনেক কর্মকর্তা,পুলিশ সদস্য দায়িত্বপালন করতে গিয়ে জীবন দিয়েছেন,তাদের সকলের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন।তিনি দেশের শান্তি, সম্প্রীতি ও শৃঙ্খলা রক্ষায় এগিয়ে আসার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,জেলা সিনিয়র সাংবাদিক তরুণ কুমার ভট্টাচার্য,খাগড়াছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা তৃণা চাকমা,খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের প্রভাষক মোঃ জাকির হোসেন প্রমুখ।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ আক্তার হোসেন,পেরাছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তপন বিকাশ ত্রিপুরা,৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ পরিমল দেবনাথ,ভাইবোনছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পরিমল ত্রিপুরা,,জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সুদর্শন দত্ত,গোলাবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জ্ঞান রঞ্জন ত্রিপুরা,বিভিন্ন বিভাগের পুলিশ কর্মকর্তা,পুলিশ সদস্য ও জেলা গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।