ঢাকা, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ৫ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

গম চাষে অনাগ্রহী তালার কৃষকেরা, সকল লক্ষ্যমাত্রা বর্জন


প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৮, ২০২২


বি এম বাবলুর রহমান (তালা-সাতক্ষীরা)

কৃষিতে সফলতা তালা উপজেলার কৃষকরা গম চাষে অনগ্রহী হয়ে পড়েছে। উৎপাদন খরচের তুলনায় মুনাফা না পাওয়ায় উপজেলার কৃষকরা গম চাষে আগ্রহ হারিয়েছেন।

তালা উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্য মতে গত বছর উপজেলায় ১৭৫ হেক্টর জমিতে গম চাষ হলেও সেটা এবার নেমে এসেছে ১২০ হেক্টর। গত বছরের তুলনায় এবার গম চাষে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এর স্থলে বর্জন হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায় দিন দিন গমে চাষ ক্রমাগত ভাবে কমে যাচ্ছে। মাটি ও আবহাওয়া উপযোগী থাকলেও উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি এমনকি ফলন কম হওয়ার কারণে গম চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন কৃষকরা। নানাবিধ কারনে উপজেলায় গম চাষ ব্যাপক হুমকির মুখে পড়েছে। বিগত দিনে সাতক্ষীরা জেলার গম চাষে কৃষকদের ব্যাপক আগ্রহ থাকলেও বর্তমান সময়ে গম চাষে কৃষকরা অনাগ্রহী হয়ে গেছে।
কৃষকরা মনে করেন গম চাষের চেয়ে অন্য ফসল চাষ করে তুলনায় মূলক ভাবে অনেক লাভ হয়,সে জন্য গমের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষ করছেন ।উপজেলার মধ্যে গমের চাষ চোখে পড়ার মতো নয়।
খলিলনগর ,মাগুরা আগোলঝাড়া, গমের চাষ সামান্য কিছু গমের ক্ষেত দেখা গেছে। উপজেলার মোকসুদপুর গ্রামে কৃষি অধিদপ্তরের সামান্য কিছু প্রদর্শনী প্লাট দেখা গেছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর তালা সাতক্ষীরার তত্বাবায়নে গোপালগঞ্জ, বাগেরহাট সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের বারি গম -৩০ বারি মৌসুম -২০২১-২০২২ থাকলেও নিজ উদ্যোগে অন্য সব ফসলের মতো চাষের কোন ক্ষেত দেখা মেলেনি।
তালা উপজেলার গনেশপুর ব্লেক কৃষাণি রানু বালা দাশ বলেন আমাকে তালা উপজেলা কৃষি অফিস থেকে গমের বীজ ফ্রী দিয়েছে আমি ৩৩ শতক জমিতে কৃষি অফিসের পরামর্শ অনুযায়ী গম চাষ করেছি বর্তমানে আমার ফসলের অবস্থা খুব ভালো আবহা স্বাভাবিক থাকলে ভালো ফলন পাবো।
কৃষক মন্তাজ আলী জানান সরকারি সহযোগিতা ১৫ শতক জমিতে গম চাষ করেছেন। জমিতে এসে ফসল দেখলে মনটা জুড়িয়ে যায় আগামী বছরে আমি সরকারি সহযোগিতা পেলে আরো বেশী জমিতে গমের চাষ করবো।নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক একাধিক কৃষক বলেন সরকারী ভাবে আমার সহযোগিতা পেলে ধান চাষের পাশাপাশি গম চাষ বৃদ্ধি করবেন,ধান চাষের উপর কৃষকদের আগ্রহ ও ফলন বৃদ্ধি করতে যেমন বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে,একি ভাবে কৃষকদের গম চাষের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করলে সকল কৃষকরা গম চাষের প্রতি আগ্রহী হবে। কৃষকরা আরো বলেন অন্য ফসলের উন্নত মানের জাত ও বীজের গুনাগুণ, গুনাগত মান সম্পর্কে আমরা সহজে জানতে পারি কিন্তু গমের জাত ও বীজের গুনাগুণ সম্পর্কে আমরা কিছুই জানিনা।তবে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে আমাদের (কৃষকের) মাঝে প্রশিক্ষণ প্রদান করে গমের চাষ পদ্ধতি ও উন্নত জাতের বীজ সম্পর্কে অবগত করলে ভালো হবে। সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায় সাধারণ ,কাঞ্চন,আতবর, অগ্রণী,প্রতিভা, সৌরভ জাতের গম চাষ করা হয় জেলার আবহাওয়া অনুযায়ী গমের চাষ করে কৃষকরা ভালো ফলন পেয়ে থাকেন।

তালা উপজেলা কৃষি উপ সহকারী পরিতোষ কুমার বিশ্বাস জানান উপজেলায় সর্বশেষ তথ্য মতে এবছর উপজেলায় গম চাষ কমে গেছে , প্রদর্শনী প্লাট করে কিছু কিছু চাষিদের সার ও গমের বীজ বিনামূল্যে প্রদান করা হয়েছে , তাছাড়া এ বছরে গম চাষের উপর কৃষকের প্রশিক্ষণ প্রদান করেছি, সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা, কৃষকদের মাঝে প্রদান করা হয়েছে।