চার জেলায় বজ্রাঘাতে নিহত ৪

প্রকাশিত: 8:54 PM, May 27, 2020

দেশের চার জেলায় বুধবার (২৭ মে) বজ্রাঘাতে চার জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। নড়াইলে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্র, বরিশালে এক কৃষক, লালমনিরহাটে এক গৃহবধূ এবং শেরপুরে বজ্রাঘাতে এক খামারীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া শেরপুরে একজন গুরুতর আহত হয়েছে।

নড়াইল প্রতিনিধি জানায়, লোহাগড়া উপজেলার নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের রায় গ্রামে বজ্রাঘাতে অয়ন বিশাস (১৩) নামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সকাল ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। সে রায়গ্রাম উত্তরপাড়ার রনজিত বিশ্বাসের ছেলে এবং আর. কে. কে. জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সকালে স্থানীয় ইছামতি বিলে ধান আনতে গেলে বজ্রাঘাতে ঘটনাস্থলেই ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়।

বরিশাল প্রতিনিধি

জানায়, মুলাদী উপজেলায় বজ্রাঘাতে এক কৃষক নিহত হয়েছেন। বুধবার সকাল ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।
মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়েজ আাহম্মেদ জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুলাদীর ছবিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম চর ভেদুরিয়া গ্রামে কৃষক আব্দুল মান্নান গরু নিয়ে মাঠে যাচ্ছিল। এই সময় বজ্রাঘাতে তার মৃত্যু হয়। তিনি ভেদুরিয়া এলাকার মৃত আছমত আলী হাওলাদারের ছেলে।

লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানায়, আদিতমারী উপজেলায় বজ্রাঘাতে তমিজন নেছা (৫০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। তিনি ওই এলাকার পঙ্গু প্রতিবন্ধী সামছুল হকের স্ত্রী।
আদিতমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম জানান, বাড়ির সামনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিলেন গৃহবধূ তমিজন। হঠাৎ সেখানে বজ্রাঘাত হলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

শেরপুর প্রতিনিধি জানায়, নালিতাবাড়ীতে বজ্রাঘাতে তোফায়েল আলম (৩০) নামে এক হাঁস খামারীর মৃত্যু হয়েছে। এই সময় নিহতের শ্বশুর আজিজুল হক (৫০) গুরুতর আহত হন। বিকালে উপজেলার কিল্লাপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত তোফায়েল ওই গ্রামের নজি ফকিরের ছেলে।