চেয়ারম্যান বজলুর রহমানের সফলতার ১০ বছর

Jahid Jahid

Hasan

প্রকাশিত: ৩:৩২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টারঃ

প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে। কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। যে ব্যক্তি এসব প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাবেন তিনিই হবেন সফল। আজ এমনই একজন সফল সমাজ সেবক নিয়ে কথা বলব। যিনি অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে একজন সফল ব্যক্তি ও চেয়ারম্যান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত।

তিনি হলেন ৪নং বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান। আজ এই সুযোগ্য সফল ব্যাক্তির চেয়ারম্যান হিসাবে ১০ম বর্ষ পূরণ হলো।

তিনি সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন। তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে। তিনি, তাঁর পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছাশক্তি, একাগ্রতা আর প্রতিভার সমন্বয়ে সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য, স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিক ও সুচারুভাবে বাস্তবায়নের জন্য, সর্বোপরি শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের যে স্বপ্ন রয়েছে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

তিনি তার সকল কাজে সফলও হয়েছেন। সকলের সহযোগিতা পাচ্ছেন এবং সহযোগিতার আশাও ব্যক্ত করে চলেছেন। চেয়ারম্যান হিসেবে সফলতা পাওয়ায় তিনি আজ শার্শা উপজেলার সর্বত্র সম্মানিত হচ্ছেন। প্রবীণ এ ব্যক্তি তাঁর বয়স ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বেনাপোল ইউনিয়ানে করেছেন ব্যাপক উন্নয়ন। সেই সাথে পেয়েছেন অনেক খ্যাতি ও সম্মান। পেয়েছেন উপজেলা, জেলা এবং বিভাগীয় শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যানের পুরস্কার।

এসকল সফল মানুষের পেছনে আছে কিছু গল্প, তা অনেকটা রূপকথার মতো। আর সে সব গল্প থেকেই মানুষ খুঁজে নেয় স্বপ্ন দেখার সম্বল, এগিয়ে যাওয়ার জন্য নতুন প্রেরণা। চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে।

রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে দলের ভাবমূর্তির উন্নয়ন হয়েছে। অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজ ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সফল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান।

ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তাঁর মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি দলমত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয়। কাজ করছেন নৌকার জন্য। সর্বোপরি কাজ করছেন সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য। করোনাকালীন এই সংকটময় মুহূর্তে তিনি নিরালস ভাবে মানুষের মাঝে থেকেছেন। এ কারণে সর্বস্তরের মানুষ তাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন

বয়সে প্রবীণ হলেও তিনি মনোবল হারাননি। এই সফল মানুষটি দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে প্রতিটি মানুষের বিপদ আপদে ছুটে চলেছেন।
আজ চেয়ারম্যান হিসাবে তার এই ১০ম বর্ষ পূর্তিতে বেনাপোল ইউনিয়ানের সকল জনগণ তাকে আন্তরিক শুুভেচ্ছা এবং শুভকামনা জানিয়েছেন!