ছবি এঁকেই জেলা প্রশাসকের প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করেছেন মুকুল কান্তি ত্রিপুরা

Jahid Jahid

Hasan

প্রকাশিত: ৬:৪৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০২১


খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের ছবি এঁকে ভালোবাসার উপহার দিলেন ঊনমানুষ মুকুল কান্তি ত্রিপুরা।মুকুল কান্তি ত্রিপুরা জেলা প্রশাসক কে আগে কখনো সরাসরি দেখেন নি,তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দেখেই ও উনার মানবিক উন্নয়নের কার্যক্রম দেখেই ভালোবেসে ছবি এঁকেছেন।

মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) দুপুর ১টায় মুকুল কান্তি ত্রিপুরা নিজ হাতে যত্ন করে আঁকা ছবি উপহার হিসেবে তুলে দেয় হয় জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের হাতে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্লাহ্, জেলা প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজাহান ও জেলা প্রশাসনের সকল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ।

প্রতিবন্ধী মুকুল ত্রিপুরা বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে ডিসি স্যারের মানবিক ও উন্নয়নমূলক কাজ আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছিল। এতে স্যারের প্রতি হৃদয়ে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জন্মেছে। আমার তো আর দেয়ার মতো তেমন কিছু নেই। তাই কৃতজ্ঞতা স্বরূপ স্যারের ছবিটি এঁকে উপহার হিসেবে দিয়েছি।’

এদিকে মুকুলের কাছ থেকে এমন উপহার পেয়ে দারুণ খুশি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস। মুকুলের এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পুরণের দায়িত্ব নেন। এছাড়াও সবসময় মুকুলের পাশে থাকবপন বলে আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, ‘শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকলেও মুকুল একজন প্রতিভাবান শিল্পী। তিনি একজন ঊনমানুষও, কিন্তু অদম্য মনোবল রয়েছে তাঁর ভেতরে।’

মুকুল কান্তি ত্রিপুরা একজন ঊনমানুষ। তাঁর বাড়ি খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার ২নং বোয়ালখালী ইউনিয়ন ৯নং ওয়ার্ডের মায়াফাপাড়া গ্রামে। সে মহেশ্বর ত্রিপুরা ও নীর কান্তি ত্রিপুরার সন্তান। পাঁচ ভাই ও এক বোনের মধ্যে মুকুল সবার ছোট। চিত্রকলায় প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা না থাকলেও অনায়াসে যেকোনো ছবি আঁকতে পারার গুণ তাঁকে ইতোমধ্যে ‘শিল্পী’ হিসেবেই পরিচিত করে তুলেছে।

চিত্রশিল্পী মুকুলের শিল্পের সুনাম রয়েছে জেলাজুড়ে। চিত্রাঙ্কনের পাশাপাশি পড়াশুনাটাও সমানতালে চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। বর্তমানে দীঘিনালার কুজেন্দ্র মল্লিকা মডার্ন কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র। খাগড়াছড়ির সাংসদ ও ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি ও দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল কাশেমের সহায়তায় ইতোমধ্যে মুকুলকে একটি আর্ট স্কুল প্রতিষ্ঠা করে দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরও পেয়েছেন তিনি। আর্ট স্কুলেই গ্রামের শিশুদের বিনামূল্যে চিত্রাঙ্কন শেখায় মুকুল। বর্তমানে তার আর্টস্কুলে ৪৪জন শিক্ষার্থী রয়েছে।