জগতের সুখ ও শান্তির কামনায় প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপন

প্রকাশিত: ১০:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে বর্ণিল আয়োজনে মধ্যদিয়ে প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপিত হয়েছে।ভোর ৫টা থেকে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা জেলার বিভিন্ন বিহারে বিহারে সুখ,শান্তি ও সমৃদ্ধির কামনায় বাতি প্রজ্বলন করা হয়।

বুধবার(২০অক্টোবর) ভোর থেকেই সন্ধ্যা পর্যন্ত বর্ণিল আয়োজনে এবং উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হয়েছে প্রবারণা পূর্ণিমা। এ জেলার বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে এ দিবসটি উপলক্ষে সকাল থেকে পঞ্চশীল পালন,ধর্মীয় দেশনা,৮৪হাজার বাতি প্রজ্বলন,সংঘ দান,অষ্ট পরিষ্কারদান,বৌদ্ধ মূর্তি দান,চীবর দানসহ নানান ধরনের ধর্মীয় দান করা হয়।

জেলা শহরের ” য়ংড বৌদ্ধ”বিহারের অধ্যক্ষ ক্ষেমা সারা থেরা প্রতিবেদককে জানান,আমরা আষাড় মাসের পূর্ণিমা তিথি থেকে আশ্বিন মাসের পূর্ণিমা তিথি পর্যন্ত টানা তিনমাস বর্ষাবাসের পরে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপন করি।এইদিনে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা বিহারে মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা করতে আসে।আজকে(প্রবারণা পূর্ণিমা)’র পর থেকে টানা একমাস কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত হবে, বিভিন্ন বিহারে।দীর্ঘ তিন মাস বর্ষাবাসের পরে আমরা এই মাসব্যাপী ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে থাকি।

আজ দিনব্যাপী সকল বয়সী শত শত নারী,পুরুষ ও তরুণ- তরুণীরা বিহারে বিহারে নতুন সাজে, নতুন পোশাক পরে প্রার্থনা করতে জড়ো হয়।এসময় তাদের মাঝে দেখা যায় আনন্দের ছোঁয়া দেখা যায়। বিকালের দিকে জেলা শহরে চেঙ্গী নদীতে জলপ্রদীপ /কল্প মন্দির মোমবাতি জ্বালিয়ে ভাসানো হয়। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত প্রত্যেক বিহারে জগতের সুখ ও শান্তির কামনায় চুলামণি(ফানুস
বাতি) উড়ানো হয়। শূন্য আকাশে চুলামণি(ফানুস বাতি) তাবতিংশ স্বর্গের উদ্দেশ্যে শান্তির প্রতীক হিসেবে উড়ানো হয়।