জর্জ ফ্লয়েডের জন্য সুবিচার চাই

প্রকাশিত: 5:57 PM, June 2, 2020

যুক্তরাষ্ট্রে এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তার হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তির নিহত হওয়ার ঘটনায় ফুঁসে ওঠেছে পুরো বিশ্ব। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেই বিক্ষোভ শুরু হয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্রে। গত সোমবার আটকের পর ডেরেক শভিন নামের এক পুলিশ কর্মকর্তা ফ্লয়েডের ঘাড় হাঁটু দিয়ে সড়কে চেপে ধরলে তিনি মারা যান। বর্ণবিদ্বেষী এই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন ফুটবলাররা। জার্মান লিগে বিভিন্ন অশ্বেতাঙ্গ খেলোয়াড় এর প্রতিবাদ করেছেন বিভিন্ন ভাবে। এই প্রতিবাদ এখন তদন্ত করে দেখবে জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন!

রবিবার ক্যারিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিক পেয়েছেন জাডোন সানচো। বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের এই ইংলিশ ফুটবলার তাঁর প্রথম গোলের পর জার্সি খুলে ভেতরে থাকা টি শার্টের বার্তা দেখিয়েছেন, সেখানে লেখা ছিল “জর্জ ফ্লয়েডের জন্য সুবিচার চাই।” জার্সি খোলার কারণে হলুদ কার্ডও জুটেছে তাঁর। তাঁর সতীর্থ মরক্কোর আশরাফ হাকিমিও একই বার্তা দিয়েছেন টি শার্টে। এর আগে বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মার্কাস থুরাম (বিশ্বকাপজয়ী লিলিয়ান থু্রামের পুত্র) ইউনিয়ন বার্লিনের সঙ্গে গোল করে হাঁটু মুড়ে বসে (যুক্তরাষ্ট্রে এনএফএলে এটা বেশ পরিচিত) বর্ণবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছন। আর শালকেতে খেলা যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলার ওয়েস্টন ম্যাকিনিও বাহুবন্ধনীতে ফ্লয়েড হত্যার বিচার চেয়ে নেমেছিলেন মাঠে।

জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন(ডিএফবি) এই প্রতিবাদ ঠিক সহজভাবে নিতে পারছেন না। সংস্থাটির চেয়ারম্যান অ্যান্টন ন্যাকরেইনার জানিয়েছেন, ‘ডিএফবির নিয়ন্ত্রক কমিটি আগামী কয়েকদিনে এই ব্যাপারটা পরখ করে দেখবে এবং বিষয়টি পরীক্ষা করবে।’ ডিএফবির নিয়ম অনুযায়ী এমন প্রতিবাদ নিষিদ্ধ। তদন্ত চললেও সাঞ্চো এ নিয়ে ভাবতে রাজি নন। পেশাদার ফুটবলে হ্যাটট্রিকের আনন্দেও তাঁর মনে বাধা হয়ে আসছিল ছিল ফ্লয়েডের মৃত্যুর স্মৃতি, ‘প্রথম পেশাদার হ্যাটট্রিক। মুহূর্তটা অম্লমধুর, কারণ বিশ্বে এখন এর চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ঘটছে যেটা আমাদের সবার আলোচনা করা উচিত। এবং পরিবর্তন আনায় সাহায্য করা উচিত। আমাদের সবার এক হতে হবে এবং বিচারের জন্য লড়তে হবে। এক হলেই আমরা শক্তিশালী। জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর সুবিচার চাই।’

শুধু ফুটবলাররা নন, অনেকেই এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। গ্লাডবাখ কোচ মার্কো রোজও থুরামের প্রশংসা করেছেন, ‘মার্কাস যা জানানোর জানিয়ে দিয়েছে। বর্ণবাদের বিরুদ্ধে একটা উদাহরণ সৃষ্টি করেছে, আমরা সবাই এটা সমর্থন করি।’