জেলা পর্যায়ে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ের দ্বি-বার্ষিক স্কোরবোর্ড ব্যবহার,ফলাফল মূল্যায়ন ও মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩০, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে জেলা পর্যায়ে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে দ্বি-বার্ষিক স্কোরবোর্ড ব্যবহার,ফলাফল মূল্যায়ন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত।

মঙ্গলবার(৩০নভেম্বর)বিকাল ৩টায় জাবারাং কল্যাণ সমিতি’র হলরুমে সুইডিস ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন এজেন্সি (সিডা) অর্থায়নে প্লান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র কারিগরি সহায়তায় এবং জাবারাং এর ওয়াই প্রকল্পের বাস্তবায়নের সভায় জেলা পর্যায়ে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে দ্বি-বার্ষিক স্কোরবোর্ড ব্যবহার,ফলাফল মূল্যায়ন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।জেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এমরান হোসেন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন, একসময় কিশোরীরা(মেয়েরা) নিজেদের মনের কথা মা-বাবার কাছে খুলে বলতো না।কিন্তু আজ সবার মাঝে যে মনের কথা খুলে বলার প্রবণতা বা আগ্রহতা দেখা যায়,এটা কিন্তু আমাদের জন্য,আমাদের দেশের জন্য, কৈশোরদের জন্য একটি সুন্দর ও সুবর্ণ সুযোগ এটা আমি বিশ্বাস করি।আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশটাকে যেভাবে সামনে দিকে এগিয়ে নিয়ে
যাচ্ছে,নারীরাও সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছে।তার একটা অংশ হিসেবে কৈশোরীদের মনের ভাব টা প্রকাশ করার জন্য কিংবা যেকোন ব্যাপার নিয়ে তাদের আশা-আকাঙ্খা কিংবা যেকোন ইচ্ছা থাকা টা সবচেয়ে জরুরী।আজকে এখানে কৈশোরীরা যারা আছেন,আপনাদের সব ব্যাপার নিয়ে নির্দ্বিধায় বলতে পারছেন।কৈশোরীদের নিয়ে বিভিন্ন এনজিও সংস্থা কাজ করে যাচ্ছেন,এটা খুবই প্রশংসনীয়।তারা কাজ করতেছেন বিধায় আজকে এখানে কৈশোরেরা তাদের মনের কথা বলার সাহজ পাচ্ছে।কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলো সেবার মান উন্নয়ন করতে হলে স্থানীয় বিভিন্ন এনজিও সংস্থার ইতিবাচক উদ্যোগ ও যোগাযোগের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে এবং সরকারের বিভিন্ন সেক্টরের প্রতি নেটওয়ার্ক বৃদ্ধি করতে হবে। এখানকার শহর এলাকাসহ প্রান্তিক এলাকার তৃণমূল মানুষের কাছে বিষয়টি গুরুত্বে সাথে প্রচার ও প্রসারের জরুরী প্রয়োজন।

তিনি আরো বলেন,আমাদের নারীরা পিছিয়ে গেলে এদেশটাও পিছিয়ে যাবে।কৈশোর কিংবা নারীদের এগিয়ে নেয়ার জন্য সরকারি-বেসরকার সংস্থা গুলোকে এগিয়ে আসতে হবে।এখানকার কৈশোরেরা এগিয়ে গেলে আমাদের এই জেলা এগিয়ে যাবে,আমাদের এই জেলা এগিয়ে গেলে বিভাগ এগিয়ে যাবে,বিভাগ এগিয়ে গেলে এদেশ এগিয়ে যাবে।কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলো সেবার মান উন্নয়নের জন্য আমাদের পৌরসভা থেকে যা যা করার প্রয়োজন, সেটা বাস্তবায়নের জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকবে।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে খাগড়াছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ত্রিনা চাকমা,জাবারাং কল্যাণ সমিতির নির্বাহী পরিচালক মথুরা বিকাশ ত্রিপুরা,সমন্বয়ক বিনোদন ত্রিপুরা প্রমুখ।