জোরপূর্বক রাস্তায় বাঁশেরবেড়া দিয়ে ৩০টি পরিবারের চলাচলের রাস্তা আটক

Jahid Jahid

Hasan

প্রকাশিত: ৭:৪৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ

বেনাপোল পৌরসভার নামাজগ্রামের পৈত্রিক দানকৃত জমির উপর দিয়ে প্রাচীন সংযোগ সড়ক নিজের দাবি করে রাস্তায় বেড়া দিয়ে চলাচলের পথ বন্ধ করে ৩০টি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে জাকির গং।

ঘটনাটি ঘটেছে, ৭ই সেপ্টেম্বর সোমবার পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের নামাজগ্রাম এলাকায়। চলাচলের একমাত্র রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় ৩০টি পরিবারের মানুষ ঘরবন্দি হয়ে পড়েছে।

সূত্র জানায়, বেনাপোল পৌরসভার নামাজগ্রামের সংযোগ সড়কটি এলাকার মরিয়ম মেমোরিয়াল বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক (গণিত) ইনামুল হক রিপনের বাসার পশ্চিম পাশের দক্ষিণমুখী রাস্তা দিয়ে ৩০টি পরিবার সহ সহস্র মানুষ দীর্ঘদিন চলাচল করে আসছে। ২০১৬-২১ অর্থবছরে পৌরসভার অর্থায়নে ওই রাস্তা নির্মাণের বিল বারবার পাশ হওয়ার পরও একটি কুচক্রী মহল সাংবাদিকতা ক্ষমতা দেখিয়ে রাস্তার কাজ বন্ধ করে দিচ্ছে। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে রাস্তার পার্শ্ববর্তী জাকির হোসেন হাঁটার পথে বিঘ্ন সৃষ্টি করে আসছে। সর্বশেষ সোমবার বাশের শক্ত বেড়া দিয়ে তারা স্থায়ীভাবে চলাচলের পথ বন্ধ করে দিয়েছে।

ভুক্তভোগী মোঃ বাবলুর রহমান জানান, ৩০টি পরিবারের চলাচলের পথটি জাকির হোসেন ও তার পরিবার বাশ দিয়ে বেড়া দিয়ে আটকিয়ে দেয়। আসলে যে জমির উপর দিয়ে রাস্তা যাচ্ছে সেটা জাকিরের পিতা কবরস্থানে দান করে গেছে। জাকির লোক মারফত আমার কাছে জমিটা বিক্রি করতে চাইলে আমি তাকে বলি যদি দানকৃত জমি আমার রেজিট্রি হয় তাহলে আমি কিনবো। এছাড়াও সে আমার নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সংবাদ প্রকাশ সহ থানায় ভিত্তিহীন জিডি করেছে।

নামাজগ্রাম নিবাসী রিপন হোসেন বলেন, জাকির মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে মানুষকে হয়রানি করছে। পুরো গ্রামবাসী একদিকে আর একদিকে। প্রয়োজন পুরো গ্রামবাসী তার মিথ্যাচারে গণসাক্ষর দেবে এবং বাবলুর নামে মিথ্যাচার করায় আমি এর তীব্র নিন্দা জানায়।

এ ব্যাপারে জাকির হোসেন বলেন, রাস্তায় কোনো বেড়া দেওয়া হয়নি। যার জায়গা সে বাশ দিয়ে সীমানায় বেড়া দিয়েছে। যারা অভিযোগ করছে, আসলে অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাবুদ্দিন মন্টু বলেন, পৌরসভার সড়কটি দিয়ে ৪৫ থেকে ৫৫ বছর ধরে মানুষ চলাচল করে আসছে। রাস্তা বন্ধ করার কোনো সুযোগই নেই। ঘটনাস্থলে গিয়ে আমি সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছি।