ডিসেম্বরেই ইতালিতে ঢুকেছিল করোনা ভাইরাস

প্রকাশিত: 4:54 PM, June 19, 2020

চীনের বাইরে শুরুর দিকে সবচেয়ে বেশি ইতালিতে তাণ্ডব চালিয়েছিল করোনাভাইরাস। এতদিন পর্যন্ত দেশটির সরকার জানিয়েছিল যে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি ইতালিতে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে এক গবেষণায় দেখা গেছে, ফেব্রুয়ারি নয় বরং গত বছরের ডিসেম্বরে ইতালিতে ঢুকেছিল করোনাভাইরাস। গত বছরের ডিসেম্বরেই চীনের উহান থেকে করোনার প্রাদুর্ভাব ঘটে।

ইতালির একটি জাতীয় স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউট বর্জ্য পানির ওপর গবেষণা চালিয়ে এ তথ্য পেয়েছে। আইএসএস ইন্সটিটিউট জানিয়েছে, ডিসেম্বরেই উত্তরাঞ্চলীয় ইতালি দুটি বড় শহর মিলান ও তুরিনে করোনা ঢুকে গিয়েছিল। আর চলতি বছরের জানুয়ারিতে বোলোনাতে প্রবেশ করেছিল করোনা।
সংস্থাটি বলছে, ইতালিতে এই ভাইরাসের বিস্তার কীভাবে শুরু হয়েছে, এই ফলাফলের মাধ্যমে তা জানা যাবে। করোনা শনাক্তকরণের একটি প্রাথমিক টুল হিসেবে পয়োনিষ্কাশনের পানির নমুনার কৌশলগত ভূমিকা রয়েছে।
আইএসএস’র পানির মান বিশেষজ্ঞ গুইসেপ্পিনা লা রোজা এবং তার টিম ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৪০টি বর্জ্যপানির নমুনা পরীক্ষা করেন। লা রোজা বলেন, ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত নমুনায় করোনা ধরা পড়েনি। অর্থাৎ তখনও ভাইরাসটি ইতালিতে প্রবেশ করেনি।
ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে ইতালিতে করোনা আঘাত হানে। এরপর বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে দেশজুড়ে লকডাউন আরোপ করে ইতালি। দেশটিতে ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝিতে চীনা পর্যটক এক দম্পতির শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। একই সময় লোম্বার্দি অঞ্চলের কোদোগনো শহরে একজন রোগীর শরীরেও করোনা ধরা পড়ে।
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে ইতালিতে এখন পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৫১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি মানুষ। আর সুস্থ হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৫৪৪ জন। তবে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমে এসেছে।