ঢাকা মেডিকেল হাসপাতাল থেকে ৫ দালাল আটক

প্রকাশিত: ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২২

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগ থেকে পাঁচজন দালালকে আটক করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দুপুরের দিকে তাদের আটক করা হয়।

রোগীদের হয়রানি করা, সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে টাকা পয়সা হাতিয়ে নেওয়া এমনকি রোগীদের বিভিন্ন জিনিসপত্র চুরির অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।

আটকেরা হলেন পারুল, জবুর নিলু, আসমা খাতুন, ও রোজিনা বেগম।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্লাটুন কমান্ডার মো. শাহ আলম বলেন, ‘হাসপাতালের পরিচালক স্যারের বহির্বিভাগ থেকে তাদের হাতেনাতে আটক করা হয়। এ সময় তারা বিভিন্ন রোগীকে ফুঁসলিয়ে অন্য জায়গায় নিয়ে যাচ্ছিল।’

হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, ওয়ার্ড মাস্টার আবুল বাশারের কক্ষের সামনেই এই দালালরা ঘোরাফেরা করত। কিন্তু বাশার তাদের কিছুই বলতেন না। বরং টাকার বিনিময়ে তাদের আশ্রয় দিতেন। এমনকি অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতি দালালের কাছ থেকে প্রতিদিন ৫০০ টাকা করে নিতেন।

নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক একাধিক স্টাফ জানিয়েছে, বাশার খুব ধুরন্ধর। বহির্বিভাগে তার ১৫ থেকে ২০ জন দালাল রয়েছে। তাদের সবার কাছ থেকে প্রতিদিন ৫০০ টাকা করে নিতেন।

তবে এ সব অভিযোগ অস্বীকার করেন ওয়ার্ড মাস্টার আবুল বাশার। তিনি বলেন, ‘এ সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। দালালেরা প্রায় ৪০ বছর ধরে এখানে থাকে। এরা কেউ কেউ স্টাফদের খালা, ফুফু, বোন।’

বাশার বলেন, ‘আমি দুই বছর হলো বহির্বিভাগে এসেছি। এর আগে অনেকবার তাদের পুলিশে তুলে দেওয়া হয়েছে।’

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক বলেন, ‘রোগীদের হয়রানি করার সময় বহির্বিভাগ থেকে আটক করে এই পাঁচ মহিলা দালালকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে।’

ওয়ার্ড মাস্টার আবুল বাশারের বিষয়ে পরিচালক বলেন, ‘তার বিষয়ে এখনও কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’