তালেবানের টার্গেট এখন বড় শহরগুলো

প্রকাশিত: ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৪, ২০২১

আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহারের পর দেশের আরও দুই গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী– লশকর গাহ এবং হেরাত এখন তালেবানের হাতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। খবর বিবিসি বাংলার।

তুমুল লড়াই চলছে তিনটি শহরেই।সংবাদদাতারা জানাচ্ছেন যে কোনও সময় এসব শহরগুলোর পতন হতে পারে।

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহারে রবিবার তালেবানের রকেট হামলার পর বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। কান্দাহারের দখল নিতে পারলে তালেবানের কাছে তা হবে বিশাল এক প্রতীকী বিজয়- কারণ একসময় তালেবানের কেন্দ্রই ছিল এই শহরটি।

হেলমান্দ প্রদেশের রাজধানী লশকর গাহ নিয়ন্ত্রণে রাখতে তালেবান অবস্থানের ওপর সরকারি বাহিনী গত কদিন ধরে বিমান হামলা চালালেও পরিস্থিতি নাজুক। এ শহরটি দখল নিতে পারলে ২০১৬ সালের পর এই প্রথম তালেবান কোনও প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ পাবে।

শুক্রবার তালেবান সেখানে জাতিসংঘ অফিসের চত্বরে হামলা চালায়। কিন্তু জানা গেছে সরকারি বাহিনীর পাল্টা হামলার পর পিছু হটেছে তালেবান। হেরাতের সাবেক গভর্নর এবং সাবেক এক মুজাহেদিন কম্যান্ডার ইসমাইল খান কয়েকশ’ উপজাতীয় যোদ্ধাকে নিয়ে হেরাতের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে সেনাবাহিনীকে সাহায্য করছেন।কতদিন সরকারি বাহিনী তালেবানকে প্রতিরোধ করতে পারবে- তা নিয়ে কাবুল সরকার থেকে শুরু করে আমেরিকান সরকার- সবাই উদ্বিগ্ন।

আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি সোমবার পার্লামেন্টে এক ভাষণে পুরো পরিস্থিতির জন্য তড়িঘড়ি করে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারকে দায়ী করেন।