তুমি নারী,নিজের জ্ঞানে নিজের সিদ্ধান্তে জীবন সাজাও;মানববন্ধনে বক্তারা

প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ৯, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

“টেকসই আগামীর মূল শর্ত জেন্ডার সমতা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন করেছেন খাগড়াছড়ি’র ওইমেন এক্টিভিস্ট ফোরাম।

বুধবার(৯মার্চ)সকাল সাড়ে ৯টায় খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাবের সামনে BNPSl,Prime প্রকল্প এবং নারী প্রগতি সংঘের সহযোগিতায় নারী হেডম্যান কার্বারী নেটওয়ার্ক’র বাস্তবায়নে এ মানববন্ধন করা হয়।এ মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন অঞ্জলি ত্রিপুরা।এ সময় টিএসএফ’র সদর শাখা’র সাধারণ সম্পাদিকা ও ওইমেন এক্টিভিস্ট ফোরামের সদস্য সচিব নিশি ত্রিপুরা’র সঞ্চালনায় ধারণাপত্র পাঠ করেন উখি চাকমা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন,আমরা নারীরা একা পৃথিবী বদলাতে পারব না কিন্তু পানিতে একটা ঢিল ছুঁড়ে লক্ষ ঢেউয়ের সূচনা করতে পারব।তুমি নারী সবাই চেষ্টা করবে তাদের সিদ্ধান্ত তোমার উপর চাপিয়ে দিতে, তোমাকে গণ্ডির মধ্যে আটকে ফেলতে। তারা নির্ধারণ করে দেবে তুমি কী পরবে, কেমন আচরণ করবে, কার সাথে মিশবে, কোথায় যাবে। অন্যের সিদ্ধান্তে বেঁচো না। তুমি নারী,নিজের জ্ঞানে নিজের সিদ্ধান্তে জীবন সাজাও।
বাংলাদেশের নারীরা শত প্রতিকূলতার মাঝেও যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখছে,তার অন্যতম কারণ হচ্ছে উন্নয়নের সর্বক্ষেত্রে নারীর সমতঅংশগ্রহণ।কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি যে,বর্তমানেও ঘরে কিংবা বাহিরে নারীদের অবদানের যথাযথভাবে কোন স্বীকৃতি পায় না।আজ নারীরা নিজ কর্মস্থলে নিরাপত্তা নেই,মজুরিতেও বৈষম্যের শিকার,অন্যদিকে উগ্র ধর্মীয় মৌলবাদী একটি মহল নারীবিরোধী নানান অযোক্তিক,অসাংবিধানিক দাবি তুলে নারীর অগ্রযাত্রার পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।এ ধরনের নারী বিরোধী ধর্মীয়,সামাজিক বাস্তবতা ও সমাজ সদস্যদের একাংশ নারী সমানাধিকার -পরিপন্থী দৃষ্টিভঙ্গির কারণেই নারীরা আজও পুরুষের চেয়ে অনেকাংশে পিছিয়ে আছে।

ধারণাপত্রে পাঠের সময় উখি চাকমা বলেন,খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সামগ্রিক চিত্র যদি আমরা বিশ্লেষণ করি তাহলে দেখা যায় যে,পার্বত্য চুক্তির দুই অতিবাহিত হওয়ার পরে এখানকার মানুষের জীবনমান অনেকটা পাল্টেছে।ইতোমধ্যে দেশ ছাঁপিয়ে বিদেশেও নান্দনিক পর্যটন নগরী হিসেবে দারুণভাবে সমাদৃত হয়েছে আমাদের মাতৃভূমি।নাগরিকতায় অভ্যস্ত জীবন যখন হাঁসফাঁস করে, ধুলো -ধুসরিত সমতলে হাঁপিয়ে ওঠা মানুষগুলো কোন না কোনো এক সময়ে ঠিকই আমাদের এই পাহাড়ের মেঘে ভিজতে ছুঁটে আসেন।আমাদের কলকলে চেঙ্গী নদীর জলে পা ভেজান।ঘুরতে এলে কোন সমস্যা নেই,যতো বিপত্তি কেবল তাদের পাহাড়ের নারীদের প্রতি কুদৃষ্টি দেয়া এবং আরো বেশি বিপত্তি বাঁধে অপরাধীরা বদলি হয়ে আসে।আসলে এই সমস্যা রাষ্ট্রের নয়,সমস্যা আমলাদেরও নয়।সমস্যাটা আমাদের অর্থাৎ খাগড়াছড়ি জেলাবাসীর।চুপচাপ সয়ে যাওয়াতেই আমাদের সমস্ত অসংগতি।প্রতিবাদী না হওয়াতেই আমাদের ললাটে কলঙ্কের কালিমা দিন দিন বেড়েই চলেছে।আমরা আর কোন অপরাধী বদলি খাগড়াছড়িতে স্থান দিতে চানা।যদি অপরাধীদের শাস্তি স্বরুপ এ জেলাগুলোতে বদলি করা হয়,তাহলে প্রতিরোধ করা হবে।

বদলিজনিত ঘটনার বিবরণে তিনি উল্লেখ করেন:
(১) আনুমানিক জানুয়ারী ২০২২ খ্রিঃ চাঁপাই নবাবগঞ্জ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র- টিটিসি’র অধ্যক্ষ মো. জয়নাল আবেদীনকে পানিশমেন্ট হিসেবে খাগড়াছড়িতেই বদলি করা হয়। বদলির কিছুদিন আগে তার বিরুদ্ধে একই প্রতিষ্ঠানের এক নারী প্রশিক্ষককে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছিলো।
(২) ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রিঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্লীতে অগ্নিকান্ডে পুলিশের সম্পৃক্ততা প্রমাণিত হওয়ায় জেলার পুলিশ সুপারকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছিলো উচ্চ-আদালত। তাৎক্ষনিক শাস্তিস্বরূপ এসপি আশরাফুল ইসলামকে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার মহালছড়ি উপজেলার ৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক হিসেবে বদলি করা হয়েছিলো।
(৩) ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রিঃ (আনুমানিক)সমসাময়িক সময়ে এক নারী চিকিৎসক ভালোবেসে বিয়ে করেছেন এক নরসুন্দরকে। নাপিত বর আর ডাক্তার কনের ওই পরিণয়ে হৃদয়দাহ্ হয়েছিলো রংপুর সিআইডির পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাসের। এক সংবাদ সম্মেলনে তার প্রতিক্রিয়ার বহিঃপ্রকাশও ঘটিয়েছিলেন তিনি। ওইদম্পতির বিয়ে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় নেটিজেনদের দারুণ সমালোচানার মুখে পড়েন সিআইডির এসপি মিলু মিয়া বিশ্বাস। অনুতাপের বিষয় হলো পরবর্তীতে আমরা দেখেছি এই পুলিশ কর্মকর্তাকেও মহালছড়ি উপজেলার ৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের ইন সার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারের কমান্ড্যান্ট হিসেবে বদলি করা হয়েছিলো তখন।

(৪) ডিসেম্বর ২০২১ খ্রিঃ কুড়িগ্রাম জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকারের বিরুদ্ধে অফিসের ভেতরেই এক সেবাগ্রহীতা নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠে। এই কর্মকর্তা দোষী না কী নির্দোষ তা আলোচনার বিষয় নয়৷ প্রশ্ন হলো তাকেও কেনো ‘পানিশমেন্ট ট্রান্সফার’ হিসেবে খাগড়াছড়িতেই বদলি করতে হলো।
(৫) মার্চ ২০২১ খ্রিঃ ভূমি অধিগ্রহণে জালিয়াতির অভিযোগে খাগড়াছড়ি’র ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা বিজয় কুমার সিংহকে গ্রেপ্তার করেছিলো দুদক। তবে এর আগে ওই কর্মকর্তা কক্সবাজারে একই পদে কর্মরত ছিলেন। সেখানেও তার বিরুদ্ধে ভূমি অধিগ্রহণে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠার পর তাকে খাগড়াছড়িতে বদলি করা হয়েছিলো।
(৬) ৩/২/২১ খ্রি খাগড়াছড়ি সরকারী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক মোঃ সোহলে রানা কর্তৃক ঐ প্রতিষ্ঠানের এক ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় গ্রেফতার করা হয়। উল্লেখ্য যে, মোঃ সোহলে রানার বিরুদ্ধে পূর্বতন প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানির অভিযোগে খাগড়াছড়িতে বদলি করা হয়েছিল।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতি’র নির্বাহী পরিচালক শেফালিকা ত্রিপুরা, জেলার WRN সদস্য নমিতা চাকমা,সিএইচটি হেডম্যান -কার্বারী নেটওয়ার্ক ‘র আহ্বায়ক জয়া ত্রিপুরা,ত্রিপুরা স্টুডেন্টস্ ফোরাম,বাংলাদেশ’র সদর শাখা’র সভাপতি খলেন জ্যোতি ত্রিপুরা,বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্টস্ কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদিকা সীমা মারমা,নারী কার্বারী ভূমিকা ত্রিপুরা,ওইমেন এক্টিভিস্ট’র সদস্য পিংকি বড়ুয়াসহ আরও অনেকে।