তৃতীয় ওয়ানডেতে সাকিবের থাকা না থাকা তার পরিবারের স্বাস্থ্যের উপর নির্ভর করছে- জালাল

প্রকাশিত: ১:৪৩ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২২, ২০২২

জাতীয় দলের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকায় থাকায় এই মুহূর্তে পরিবারের পাশে থাকা সম্ভব হচ্ছে না বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডারের। তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় যে কোনো সময় দেশে আসতে পারেন তিনি।

অসুস্থ হয়ে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন সাকিব আল হাসানের মা শিরিন আক্তার। এছাড়া ছেলে আইজাহ আল হাসান ও ছোট মেয়ে ইরাম হাসান নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত। তারাও হাসপাতালে ভর্তি আছে দাদির সঙ্গে। অন্যদিকে বড় মেয়ে আলাইনা হাসান অব্রি ঠাণ্ডা-জ্বরে ভুগছে। সবমিলিয়ে পারিবারিকভাবে বেশ সংকটময় মুহূর্ত পার করছেন টাইগার অলরাউন্ডার।
সাকিবের দেশে ফেরা কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকায় থাকা দুটোই নির্ভর করছে তার পরিবারের স্বাস্থ্যের অগ্রগতির ওপর। সোমবার (২১ মার্চ) বিকেলে বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি বলেন, বিসিবি তার পাশেই থাকছে। সাকিব যে সিদ্ধান্ত নিবেন, তা মেনে নেওয়ার কথা বললেন এই কর্মকর্তা।

তিনি আরো বলেন, ‘সাকিবের সঙ্গে গতকাল ও আজ সকালে কথা হয়েছে। আপনারা জানেন যে তার পরিবার সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। সাকিবের মা, শাশুড়ি আর দুই সন্তান অসুস্থ হয়ে এখন হাসপাতালে আছে। আবার এদিকে সাকিব দক্ষিণ আফ্রিকায় আছে খেলার জন্য, সে বুঝতে পারছে না কি করবে। মানসিকভাবে একটা টানাপোড়েন যাচ্ছে তার।’

‘যেহেতু আগামী ২৩ তারিখে আরেকটা ওয়ানডে আছে, সেহেতু সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃতীয় ওয়ানডে খেলে আসবে, যদি না এখানে গুরুতর কোনো ঝামেলা না হয়। পরিস্থিতি এমনও হতে পারে যে হয়তো তাকে এখানে আগেই আসতে হচ্ছে। এই ধরনের পরিস্থিতি যদি তৈরি না হয় তাহলে তৃতীয় ওয়ানডে খেলে আসবে। তো পরিস্থিতি এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না, আমরা অপেক্ষা করছি। বড় কোনো সমস্যা না হলে তৃতীয় ওয়ানডেতে আমরা তাকে পাচ্ছি।’- জালাল।

জালালের ভাষ্যমতে সেঞ্চুরিয়নে তৃতীয় ওয়ানডেতে সাকিবের থাকা না থাকা নির্ভর করছে তার পরিবারের স্বাস্থ্যের অগ্রগতির ওপর। বিসিবি এটা সম্পূর্ণ ছেড়ে দিয়েছে সাকিবের হাতেই।

জালাল বলেন, ‘সে যদি মনে করে থাকে এখানে তার উপস্থিত থাকা দরকার অবশ্যই আমরা চাইব, সে চলে আসুক। যদি এরকম পরিস্থিতি থাকে, তাহলে টেস্টেও তো একটা প্রশ্নচিহ্ন থাকে, সে খেলবে নাকি খেলবে না। সবকিছু নির্ভর করছে তার এখানকার পারিবারিক পরিস্থিতির ওপরে। সবকিছু চিন্তা ভাবনা করেই হয়তো সে সিদ্ধান্ত নেবে।’