দীঘিনালায় খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন ও সেপকস

প্রকাশিত: ৩:৩৩ অপরাহ্ণ, মে ১, ২০২২


খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে দীঘিনালা জোনের আয়োজনে ৩হাজার অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন ও সেপকস(সেনা পরিবার কল্যাণ সমিতি) এর পক্ষ থেকে মানবিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।রবিবার(০১মে)সকাল ১০টায় দীঘিনালা উপজেলার ১ং মেরুং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বেতছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ প্রাঙ্গনে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এবং সেনা পরিবার কল্যাণ সংস্থা’র যৌথ উদ্যোগে অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী,এতিম ও অসহায় শিশুদের মাঝে নতুন পোষাক বিতরণ করা হয়।

ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এবং খাগড়াছড়ি রিজিয়নের সেপকস’র সহ-সভাপতি রাবেয়া জাহাঙ্গীর।

ত্রাণ সামগ্রী ও এতিম শিশুদের মাঝে নতুন পোষাক বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রিজিয়ন কমান্ডার বলেন,খাগড়াছড়ি রিজিয়ন পাহাড়ী-বাঙ্গালী নির্বিশেষে সবসময় পার্বত্যঅঞ্চলের যেকোন ধরনের সাহায্য সহযোগিতার কাজে এগিয়ে এসেছে।এই সহযোগিতা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

তিনি আরও বলেন,আমরা সবসময় চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোরতার সাথে কাজ করি।এদেশে সন্ত্রাসী এবং চাঁদাবাজদের কোন স্থান।আমরা এ পার্বত্যঅঞ্চলের সকলের সম্প্রদায়ের মানুষের সাথে ছিলাম,আছি এবং থাকবো। ধর্ম যার যার, আনন্দ সবার,ধর্ম যার যার উৎসব সবার।আমরা এই ঈদেও সকলের সাথে আনন্দ এবং উৎসব ভাগাভাগি করে কাটিয়ে দিতে চাই। ধর্ম,বর্ণ,জাতি ও নির্বিশেষে সবসময় ভালো কাজের মাধ্যমে পাশে থাকবো।আমরা সবসময় মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করে আসছি।ভবিষ্যতেও এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

পরে ত্রাণ সামগ্রী ও পোষাক বিতরণ শেষ পর্যায়ে মেরুং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদা বেগম লাকী বলেন,বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পাহাড়ী-বাঙ্গালী নির্বিশেষে এই এলাকার সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে সর্বদা বদ্ধপরিকর।আমরা সেনাবাহিনীর এই মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

মেরুং ইউনিয়নের ওয়ার্ড মেম্বার ঘনশ্যাম ত্রিপুরা বলেন,বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সুখে-দুঃখে সবসময় যেকোন ধরনের সাহায্য সহযোগিতা প্রদানের মাধ্যমে আমাদের এ এলাকার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়নের স্টাফ অফিসার(জিটুআই) মেজর মোঃ জাহিদ হাসান, দীঘিনালা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল চৌধুরী মোহাম্মদ ফাহিম আশরাফী এবং উনার সহধর্মিণী রেহনুমা মুনজুর প্রমুখ।এছাড়াও খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়,দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের বেতছড়ি এলাকার অধিকাংশ মানুষ দরিদ্র ও অসহায়।এ এলাকায়। পাহাড়ী-বাঙ্গালী নির্বিশেষে বসবাস করে আসছে।প্রত্যন্ত এই এলাকার বেশিরভাগ মানুষ কৃষিকাজ ও দিনমজুরি করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।বছরের এই সময়ে কৃষি জমিতে কোন কাজ না থাকায় সাধারণ মানুষের জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।এ অবস্থার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন ও সেপকসের যৌথ উদ্যোগে মানবিক সহায়তা প্রদান করা হয়।