দীঘিনালায় প্রশাসনের তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেলেন কিশোরী

প্রকাশিত: ১১:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে এক কিশোরী।

আজ সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বাবুছড়া ইউনিয়নের মজ্ঞ্যা কার্বারী পাড়ায় ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফাহমিদা মোস্তফা।

বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর আওতায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে দায়ী ব্যক্তিকে ৫ হাজার টাকা অর্থ দন্ডাদেশ দেয়া হয় এবং এ ধরণের অপরাধ আর করবে না মর্মে সংশ্লিষ্টদের থেকে মুচলেকা সম্পাদনের আদেশ দেওয়া হয়।

দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফাহমিদা মোস্তফা প্রতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন,‘স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে বাবুছড়ায় অপ্রাপ্তবয়স্ক(কিশোরী)মেয়ের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে। পরে প্রায় সাড়ে ৭টায় ন্ধ্যায় পুলিশ নিয়ে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হই।সেখানে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পয়ে তাৎক্ষণিক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।পরে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।এসময় মেয়ের ১৮ বছরের আগে তাকে বিয়ে দেবে না মর্মে লিখিতভাবে মুচলেকা প্রদান করেন অভিভাবকেরা।

এসময় তিনি আরো বলেন, বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে দীঘিনালা উপজেলা প্রশাসনের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। এসময় তিনি এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধিদের ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণের অনুরোধ জানান এবং অভিভাবকদের বাল্যবিবাহ সম্পর্কে সতর্কবার্তা দেন।