দীর্ঘ প্রায় আঠারো মাস পরে প্রাক্-প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত -“প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।” “

প্রকাশিত: ৮:৩৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ২, ২০২২

প্রাথমিক এবং উচ্চশিক্ষার পর এবার প্রাক্-প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদেরও বিদ্যালয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। আগামী ২০ মার্চ থেকে বিদ্যালয়ে এনে পাঠদান করা হবে।

করোনা সংক্রমণের কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছিল সরকার। দীর্ঘ ১৮ মাস পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়। কিন্তু প্রাক্‌-প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের তখনো বিদ্যালয়ে না আনার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর নতুন করে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ২১ জানুয়ারি আবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করে সরকার; যা ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছিল। এর মধ্যে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ২২ ফেব্রুয়ারি খুলে দিলেও প্রাথমিকের ছুটি গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল।

আজ থেকে দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতেও প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সশরীর ক্লাস শুরু হয়েছে। কিন্তু প্রাক্-প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসা আপাতত বন্ধই রাখা হয়। দুই সপ্তাহ করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে এই স্তরের শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এখন জানানো হলো, ২০ মার্চ থেকে এসব শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ে আনা হবে।

দেশের সরকারি বিদ্যালয়গুলোতে পাঁচ থেকে ছয় বছর বয়সী শিশুদের জন্য এক বছর মেয়াদি প্রাক্‌-প্রাথমিক শিক্ষাস্তর রয়েছে। এটিকে ‘শিশু শ্রেণি’ বলা হয়। ইংরেজি মাধ্যম ও কিন্ডারগার্টেনের প্লে, নার্সারি ও কেজি শ্রেণিও প্রাক্-প্রাথমিক স্তরের মধ্যে পড়ে।