পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মীর পাশাপাশি যশোরে আজ সোমবার ১৮জন করোনা পজিটিভ সনাক্তের বিস্তারিত

প্রকাশিত: 7:50 PM, June 22, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মীর পাশাপাশি যশোরে আজ সোমবার ১৮জন করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়েছে। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে নমুনা পরীক্ষার পর পাঠানো রিপোর্টে তারা করোনা পজিটিভ হন। এদিন মোট ৮৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।
জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে এদিন শনাক্তরা হলেন, যশোর শহরের আরবপুর এলাকার সাত বছর বয়সী একটি শিশু ও তার ব্যবসায়ী বাবা (৫৮); মণিহার এলাকার বাসিন্দা ও যশোর জেনারেল হাসপাতালের এক পরিচ্ছন্নতাকর্মী (৫০); সদর উপজেলার বারীনগর এলাকার ৫০ বছর বয়সী এক ব্যবসায়ী, যিনি বর্তমানে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
শনাক্তদের মধ্যে আছেন, শহরতলীর বিরামপুর এলাকার ৫০ বছর বয়সী এক ব্যবসায়ী; শহরের পুরাতন কসবা এলাকার বাসিন্দা ও জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের এক সার্জেন্ট (২২), সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি মাঠপাড়া গ্রামের ৩২ বছর বয়সী এক চাষি; শহরের পুরাতন কসবা নিরিবিলি এলাকার বাসিন্দা ও ট্রাফিক পুলিশের এক কনস্টেবল (৫৭); কেন্দ্রীয় কারাগারের রক্ষী, যিনি শহরতলির কিসমত নওয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা (৩৮)।
আরো আছেন শহরের বেজপাড়া এলাকার ৫০ বছর বয়সী এক ব্যবসায়ী; পুলিশ লাইনের এক নারী কনস্টেবল, উপশহর বি ব্লকের বাসিন্দা ও যশোর নার্সিং ইনস্টিটিউটের ডেপুটি চিফ ইন্সট্রাক্টর (৫৫)।
শনাক্তদের তালিকায় নাম রয়েছে বাঘারপাড়ার ভূমি অফিসের নাজির ওই উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের এক বাসিন্দা (৪৫); একই উপজেলার এক কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (৩৩); অভয়নগরের প্রেমবাগ ইউনিয়নের বনগ্রামের ৩৫ বছর বয়সী এক গৃহিণী, মণিরামপুর উপজেলার পারখাজুরা গ্রামের এক চাষি (৬০); অভয়নগরের নওয়াপাড়ার ৪২ বছর বয়সী এক গৃহবধূ এবং একই এলাকার বাসিন্দা ও রাষ্ট্রায়ত্ত জনতা ব্যাংকের একজন কর্মী (৩৪)।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এই সব রোগীর বিস্তারিত ঠিকানা সংগ্রহ করে স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করেছে। তারা বাড়িগুলো লকডাউন করার কাজে নিয়োজিত রয়েছেন।