বাংলাদেশ সিরিজ সামনে রেখে অনুশীলনে শ্রীলঙ্কা

প্রকাশিত: 8:21 PM, June 2, 2020

ক্রীড়া সংস্থাগুলো আর  ক্রিকেট বোর্ড এর এখন একটাই চিন্তা যেভাবেই হোক মাঠে ফেরাতে হবে ক্রিকেট। আর তারই পরিপ্রেক্ষিতে প্রথম পদক্ষেপ খুব সম্ভবত শ্রীলঙ্কাই উঠালো।

করোনাভাইরাস-পরবর্তী সময় ধীরে ধীরে মাঠে ফিরছে ক্রিকেট। এরই মধ্যে বেশ কিছু দেশ ক্রিকেটারদের অনুশীলন করার অনুমতি দিয়েছে। নিজ দেশে ক্রিকেট শুরুর চেষ্টায় রয়েছে শ্রীলংকাও। আইসিসির ফিউচার ট্যুর অনুযায়ী, সামনে বাংলাদেশ ও ভারতের বিপক্ষে দ্বীপরাষ্ট্রটির হোম সিরিজ রয়েছে। এ কারণে অনুশীলন শুরুর উদ্যোগ নিয়েছে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)।

সোমবার থেকে ১৩ সদস্যের একটি গ্রুপ বানিয়ে ১২ দিনের আবাসিক অনুশীলন শুরু করছে লংকানরা। উদ্দেশ্য সামনে থাকা বাংলাদেশ ও ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রস্তুতি নেয়া। রোববার এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এসএলসি।

সোমবার থেকে ১৩ সদস্যের একটি গ্রুপ বানিয়ে ১২ দিনের আবাসিক অনুশীলন শুরু করছে লংকানরা। উদ্দেশ্য সামনে থাকা বাংলাদেশ ও ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রস্তুতি নেয়া। রোববার এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এসএলসি।

একজন ব্যাটসম্যানের সঙ্গে একজন বোলার, এভাবে  ক্রিকেটাররা অনুশীলন করবে বলে জানিয়েছে লংকান ক্রিকেট বোর্ড। বিবৃতিতে তারা জানায়, ‘তিন ফরম্যাটের খেলোয়াড়দের নিয়ে আপাতত ছোট ছোট গ্রম্নপ করে অনুশীলন শুরু করা হবে। পরিস্থিতি বিবেচনায় গ্রুপ আরও বড় করা হবে।’

এসএলসি আরও জানিয়েছে, ‘কলম্বো ক্রিকেট ক্লাবে অনুশীলন করবে খেলোয়াড়রা। খেলোয়াড়দের সঙ্গে অনুশীলনে থাকবে চার সদস্যের এক কোচিং ইউনিট ও সহায়তাকর্মী।

খেলোয়াড়রা একটি হোটেলে থাকবে। হোটেলটি শুধুমাত্র তাদের জন্যই বরাদ্দ থাকবে। এ ছাড়া সব খেলোয়াড়কে সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’

দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা নিয়মিত অনুশীলনের ভেন্যু হোটেলে খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যবিধির পরিস্থিতি পরিদর্শন করবেন। অনুশীলনের ১২ দিন ব্যক্তিগত কারণে হোটেল ও ভেন্যুর বাইরে যেতে পারবে না খেলোয়াড়রা। ক্রিকেট ফেরানোর ব্যাপারে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী অ্যাশলে ডি সিলভা বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশ এবং ভারত দুই বোর্ডের সঙ্গেই সিরিজ আয়োজন নিয়ে আলাপ করেছি। ওই দুটি সিরিজ এখনো স্থগিত হয়নি। তবে এখনো কোনো বোর্ডের কাছ থেকে সাড়া পাইনি।’

তবে ভক্তদের আশা হয়তো খুব শীঘ্রই স্বাস্থ্যবিধী মেনেই আবার মাঠে ফিরবে ক্রিকেট।