বেনাপোলে পুলিশের অভিযানে ১৫ জন পরোয়ানা ভুক্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৫:৩০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২

মোঃ সাহিদুল ইসলাম শাহীন,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

বিজ্ঞ যশোর আদালতের পরোয়ানা ভূক্ত পলাতক ১৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশ। থানা পুলিশের একটি চৌকষ দল বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে।
বেনাপোল পোর্টথানা সূত্রে জানা গেছে,যশোর জেলা বিজ্ঞ আদালতের পরোয়ানা ভূক্ত পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের আদেশের নথি বেনাপোল পোর্টথানায় এসে পৌছলে,তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য অত্র থানার পুলিশের একটি চৌকষ দল সোমবার(১৯ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযান চালায়। তবে,আসামীদেরকে গ্রেফতার করতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে পুলিশ দলের। পুলিশ বলছে,এ সকল আসামী বিভিন্ন ছদ্ধবেশে অত্র থানার বিভিন্ন এলাকায় পলায়িত ছিল। পুলিশের গোয়েন্দা তৎপরতায় তাদের প্রত্যেকের অবস্থান খুঁজে অপারেশন চালানো হয় এবং সফলতার সাথে আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গ্রেফতার হওয়া আসামীদের নাম ঠিকানাঃ- ১। মোঃ সেলিম সর্দার, পিতা-মৃত শহীদ সর্দার,সাং-নারায়নপুর, ২। মোঃ জসিম উদ্দিন, পিতা-মৃত ইয়ার আলী, সাং-বোয়ালিয়া, ৩।মোঃ কালু মিয়া, পিতা-আবু মোড়ল, সাং-সাদীপুর, ৪। মোঃ নজরুল ইসলাম ফকির, পিতা-মৃত নওয়াব আলি ফকির, সাং-ভবেরবেড়, ৫। মোঃ তৈহিদ কারিগর, পিতা-আব্দুল ওহাব কারিগর, সাং-ভবেরবেড়, ৬। মোঃ সালাম, পিতা-মৃত সিরাজুল ইসলাম, সাং-ভবেরবেড়, ৭। রাফুল ধাবক, পিতা-মোঃ সাদেক ধাকব, সাং-পুটখালী, ৮। মোঃ জাকির হোসেন ওরফে ডাকারিয়া, পিতা-মৃত রুস্তম আলী, সাং-ভবেরবেড়, ৯। মোঃ হৃদয় হোসেন, পিতা-মোঃ আনারুল ইসলাম, সাং-বড় আঁচড়া, ১০। মোঃ আইয়ুব হোসেন, পিতা-করিম গাজী, সাং-বড় আঁচড়া, ১১। মোঃ দাউদ আলী, পিতা-মৃত শুকুর আলী, সাং-কাগমারী, ১২। মোঃ আব্দুল্লাহ, পিতা-সামছুর রহমান, সাং-কাগমারী, ১৩। কোরবান বিশ্বাস, পিতা-আকবর বিশ্বাস, সাং-বালুন্ডা, ১৪। শহিন ধাকব, পিতা-বাঁচা ধাবক, সাং-পুটখালী,১৫। মোঃ মুস্তাক আলী, পিতা-মোঃ তোরাব আলী, সাং-সাদিপুর, সর্ব থানা-বেনাপোল পোর্ট, জেলা যশোর।

আসামীদের গ্রেফতারের বিষয়ে বেনাপোল পোর্টথানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া জানান, যশোর জেলার সন্মানিত পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার,বিপিএম(বার),পিপিএম মহোদয়ের নির্দেশক্রমে আসামীদের ধরতে গতরাতে অত্র থানার পুলিশ দল বিশেষ অভিযান চালায় এবং বিভিন্ন ছদ্ধবেশে লুকিয়ে থাকা অত্র থানাধীন বিভিন্ন এলাকা থেকে ঐ পরোয়ানা ভূক্ত পলাতক আসামীদের গ্রেফতার করা হয়।

আসামীদেরকে যশোর বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দের উদ্দেশ্যে প্রি-জন ভ্যানে করে যশোর নিয়ে যাওয়া হয়েছে।