বড়াইগ্রাম পুড়ে ছাই হলো জয়নাল আবেদীনের বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন।

প্রকাশিত: 10:46 AM, May 31, 2020
মোঃ সুরুজ আলী,বড়াইগ্রাম(নাটোর)প্রতিনিধি: আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে জয়নাল আবেদীনের (৬০) বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন চায়ের দোকান।
ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার মাঝগাঁও হাদিস মোড় এলাকায়।
শনিবার রাত একটার দিকে হঠাৎ আগুনে তার চায়ের দোকানটি পুড়ে মুহুর্তেই ভষ্মিভুত হয়ে যায়।
প্রতিদিনের মত দোকান খুলে বেচাকেনা সেরে  বন্ধ করে বাড়িতে যায় জয়নাল আবেদীন। স্ত্রী, ছেলে, নাতি-নাতনিদের সাথে খাওয়া-দাওয়া করে ঘুমিয়ে পড়েন তিনি। হঠাৎ এলাকাবাসীর চিৎকারে বাহিরে এসে দেখে তার একমাত্র বেঁচে থাকার অবলম্বন চায়ের দোকান টি দাউ দাউ করে পুড়ছে।
এ দৃশ্য দেখে কি করবে ভেবে না পেয়ে দিক-বিদিক হয়ে পড়েন তিনি। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আগুন নেভানো হলেও ততক্ষণে দোকানের সমস্ত মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
জয়নাল আবেদীন কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন -আমি বৃদ্ধ মানুষ। এই চায়ের দোকানটি আমার বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন ছিল সেটা আজ পুড়ে ছাই হয়ে গেল।                                          এই আগুনে আমার দোকানের প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকার মতো ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।এখন আমি কি করে কিভাবে আমার সংসার চালাবো ভেবে পাচ্ছিনা।
এলাকাবাসী জানান হঠাৎ আগুন দেখে আমরা ছুটে এসে আগুন নিভিয়ে দেই।ততক্ষনে রুটি,বিস্কুট,পান,বিড়ি-সিগারেট সহ দোকানটি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে এতে তার অনেক ক্ষতি হয়েছে। এ মুহূর্তে সকলের উচিত তার পাশে দ্বাড়ানো।
মাঝগাঁও ইউনিয়ন আ’ লীগের সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশিদ জানান- আগুনে চা দোকান টি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।করোনা এই পরিস্থিতিতে সমাজের বিত্তবান সহ সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।
তবে কি কারণে আগুন লেগেছে সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।