ভৈরবের তলদেশে মিললো তিনশ’ বছর আগের পিতলের কলস

প্রকাশিত: 12:57 PM, June 4, 2020

ভৈরব নদের তলদেশ থেকে বহুপুরাতন হাতের তৈরি এক পিতলের কলস উঠেছে। নদের যশোর শহরের ভেতর খননের সময় এই কলসটি পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে পুরাতন আমলের এই কলসটির প্রত্নতাত্ত্বিক মূল্যও থাকতে পারে। শহরের কাঁসাপট্টির ব্যবসায়ীদের দেখানো হলে পুরাতন কারবারিদের অনেকেই এমন মত দিয়েছেন। কিন্তু সরকারের প্রতœতত্ত্ববিভাগ বা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অভিজ্ঞ কারোর কাছ থেকে কলসটির ‘অ্যান্টিক ভ্যালু’ বা এটির প্রাচীনত্বের মূল্যমান জানা যায়নি। তবে সেটি নির্ণয়ের জন্য শিগগিরই বিশেষজ্ঞদের শরণাপন্ন হওয়া হবে।
জানা গেছে, শহরের পূর্ব বারান্দীপাড়া এলাকার লিচুতলায় খননের সময় নদের তলদেশ থেকে কলসটি উঠে আসে। গত মঙ্গলবার বিকেলের দিকে প্রতিদিনকার মত নদের খনন চলছিল। স্কেভেটর চালিয়ে ভৈরবের তলদেশ খুঁড়ে মাটি উঠিয়ে ঢেলে ফেলানোর সময় কলসটি প্রথম নজরে আসে। স্কেভেটরের ড্রাইভার সাগর হোসেন এটি দেখতে পান।
এরপর তিনি নদ থেকে কলস ওঠার খবর খনন কাজের দায়িত্বে থাকা মেসার্স পলাশ এন্টারপ্রাইজের ব্যবস্থাপককে জানান। খবর পেয়ে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক মনিরুজ্জামান পলাশ সেটি সংগ্রহ করেন। কাদামাটির স্তর সরিয়ে দীর্ঘসময় ধরে কলসটি পরিষ্কার করা হয়। তখন দেখা যায় কলসটি পিতলের তৈরি।
পলাশ জানান, কলসটি কতদিনের পুরোনো সেটি জানার জন্য শহরের লোনঅফিসপাড়ার কাঁসারিপট্টিতে নিয়ে যান। সেখানকার পুরাতন ব্যবসায়ীদের যারা দীর্ঘসময় ধরে কাঁসাপিতলের ব্যবসা করেন তাদের মতে, এই কলস হাতে পিটিয়ে পিটিয়ে তৈরি করা। এটি কম করে হলেও তিনশ বছর আগের। তবে সঠিকভাবে এটির বয়স নির্ণয়ের জন্য প্রতœতত্ত্ব বিষয়ে অভিজ্ঞদের শরণাপন্ন হবেন।
ইতিহাস বলছে, ভৈরবেরও একসময় প্রমত্ত রূপ ছিল। নদে জোয়ার ভাটাও হতো। এটির তীরে বড়বড় জাহাজ ভিড়তো। সুদূর অতীতে এর কূলজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক সভ্যতা গড়ে উঠেছিল। তবে সেসব এখন বিস্মৃত অতীত। আর সেসবের হিসেব মেলানও কঠিন। কারণ জন্মের কতশত বছর পেরিয়েছে ভৈরব তারও সঠিক ইতিহাস নেই। ফলে প্রাচীনত্বের বিবেচনায় এর তলদেশে বহু পুরাতন আমলের নিদর্শন ছড়িয়ে থাকাটাও অস্বাভাবিক নয়।