মহালছড়িতে হেডম্যান-কার্বারীদের ৩দিনব্যাপি কর্মশালার শুভ উদ্বোধন

প্রকাশিত: ১১:০৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলায় বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ -২য় পর্যায় প্রকল্পের স্থানীয় সরকার বিভাগ,ইউএনডিপির অর্থায়নে এবং তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার আয়োজনে ৩দিনব্যাপি হেডম্যান -কাবারীদের “Training Case Management and Documention for Traditional Leaders” কর্মশালার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
শুক্রবার(১৭ডিসেম্বর)দুপুরে মনাটেক যাদুগানালা মৎসচাষ বহুমুখী সমবায় সমিতির কার্যালয়ের হলরুমে আলোচনা সভা ও ৩দিন ব্যাপি কর্মশালায় ৩০জন কার্বারী অংশগ্রহণ করেন।জানা যায়,ইতোপূর্বে হেডম্যান-কার্বারীদের ৩৭টি ব্যাচের।কর্মশালা সম্পাদন করা হয়েছে।প্রত্যেক ব্যাচে ৩০জন করে এই পযন্ত ১১শ ১০জনকে কর্মশালার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।আজ ৩৮ তম ব্যাচে আরও ৩০ জন কার্বারী কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেছেন।এই কার্যক্রমের গতিশীলতা ও আরো বেগবান করার জন্য মনিটরিং করেন জেলা চীফ সার্কেল ও জেলার উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিরা। উদ্বোধনকালে তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক রিপন চাকমা’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মং সার্কেল চীফ( মং রাজা) সাচিং প্রু চৌধুরী।

কর্মশালা উদ্বোধন ও ভিজিটিং অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার রিপোর্টিং ও মনিটরিং অফিসার মিহির কান্তি ত্রিপুরা’র সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন যৌথ খামার ত্রিপুরা পাড়া নারী কার্বারী ভৌমিকা ত্রিপুরা।

এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মং সার্কেল চীফ (মং রাজা) সাচিং প্রু চৌধুরী বলেন,হেডম্যান কার্বারীদের বিচার ব্যবস্থা হবে প্রথা এবং রীতি-নীতি অনুযায়ী।প্রথা-রীতি-নীতি অনুযায়ী বিচার ব্যবস্থার আইন লিখিত আইনের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী।বৃটিশদের কোন লিখিত আইন নেই।তারপরেও কিন্তু পৃথিবীতে তাদের বিচার ব্যবস্থার আইন সর্বোচ্চ শক্তিশালী।তাই আমাদেরও প্রথা-রীতি-নীতি অনুযায়ী ব্যবস্থা অনেক শক্তিশালী।প্রথা রীতি অনুযায়ী বিচার ব্যবস্থাকে বাদী-বিবাদী আমরা বলবোনা।তবে যুগের সাথে তাল মেলাতে হলে লিখিত বিচার ব্যবস্থা বর্তমানে সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী।তবে আমাদের টার্গেট থাকে মীমাংসা করে দেয়া,সমঝোতা করে দেয়া।এটাইতো মূল টার্গেট।আমরা বাদী-বিবাদী পক্ষে না।আমাদেরকে মিচ্যুয়ালী মীমাংসা করার পক্ষেই চিন্তা-ভাবনা থাকতে হবে।

তিনি আরো বলেন,যে সমস্ত সমস্যাগুলো জায়গা জমি নিয়ে সমস্যা,পারিবারিক সমস্যা।সেটাকে সমঝোতা কিংবা মীসাংসা করে দেয়া আমাদের প্রথম টার্গেট থাকতে হবে।তিনি লিখিত বিচার ব্যবস্থার প্রতি জোর দেয়া আহ্বান জানান।সেইসাথে সুন্দর কর্মশালা আয়োজনের জন্য তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার প্রতি ধন্যবাদ জানান।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেডম্যান এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক স্বদেশ প্রীতি চাকমা,তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার প্রকল্প স্বমন্বয়ক ধনেশ্বর দেওয়ান।এছাড়াও কেরেংগানাল মৌজার হেডম্যান প্রতুল চন্দ্র খীসা,মনাটেক যাদুগানালা মৎসচাষ বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি রত্নোজ্জ্বল চাকমা, সাধারণ সম্পাদক ভূবন প্রীতি চাকমাসহ বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আসা কার্বারীরা উপস্থিত ছিলেন।