যশোরের রেড,ইয়োলো,গ্রিন জোন ও এলাকাভিত্তিক সংক্রমনের সংখ্যা

প্রকাশিত: 3:00 PM, June 15, 2020

গত ১৪ দিনের কোভিড-১৯ রোগীর সংক্রমণের উপর ভিত্তি করে যশোর জেলার বিভিন্ন স্থান কে রেড, ইয়েলো, গ্রিন জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। রেড জোন এলাকায় অনির্দিষ্ট কালের জন্য  লক ডাউন করা হবে আগামী ১৬জুন সকাল ৬টা থেকে । যশোর জেলার স্থানীয় সরকারের তত্ত্বাবধানে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। আজ যশোরের সিভিল সার্জন জনাব ডঃ শেখ আবু শাহীন এর সাক্ষরকৃত একটি বিজ্ঞপ্তিতে যশোরের রেড,ইয়েলো, গ্রিন জোনের এলাকার নাম গুলো প্রকাশ করা হয়েছে।

যশোরের রেড জোন এলাকাগুলো ও কত জন শনাক্ত এক নজরে দেখে নিন

যশোর সদর উপজেলার আরবপুর(৪ জন)ও পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড(৬জন),এন এস টাউন(১জন) ইউনিয়ন।

কেশবপুর উপজেলার শুধু মাত্র পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড(৫জন)।

চৌগাছা উপজেলার শুধুমাত্র পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড(১জন)।

ঝিকরগাছা উপজেলার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড(১জন)ও ৩নং ওয়ার্ড(২জন)।

শার্শা উপজেলার শার্শা(৮জন)ও পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড(২জন)।

অভয়নগর উপজেলার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড(৩জন),৪নং ওয়ার্ড(১জন),৫ নং ওয়ার্ড(১৪জন),৬ নং ওয়ার্ড(২০জন) ,৯ নং ওয়ার্ড(২জন)ও বাগুটিয়া(৫জন), পায়েরা(৪জন),চলিশিরা (১০জন)ইউনিয়ন রেড জোনের আওতাভুক্ত।

যশোরের ইয়েলো জোনের এলাকা কতজন শনাক্ত এক নজরে দেখে নিন

যশোর সদর উপজেলার পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড(২জন),৭নং ওয়ার্ড(৩জন),৮নং ওয়ার্ড(২জন) নং ওয়ার্ড এবং হাশিমপুর(১জন),ফতেপুর(৩জন),  এলাকা সমূহ।

চৌগাছা উপজেলার স্বরুপদাহ ইউনিয়ন(১জন)।

ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া(২জন) ও গদখালী(১জন)ইউনিয়ন।

অভয়নগর উপজেলার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড(১জন),প্রেমবাগ(১জন),শ্রীধরপুর(৩জন),শুভরারা(২জন)ইউনিয়ন।

বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুয়ারী(১জন)ইউনিয়ন।

মণিরামপুর উপজেলার খেদাপাড়া(১জন) ও ঝাম্পা(১জন)ইউনিয়ন,কাশিমনগর(১জন) ইউনিয়।

গ্রিনজোনের এলাকা গুলো ও কতজন শনাক্ত এক নজরে দেখে নিন

উপরোক্ত রেড ও ইয়েলো জোন ব্যতীত সকল এলাকাকে গ্রিন জোনের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
তবে গ্রিন জোনের ভিতরে গত ১৪ দিনের মধ্যে যশোর সদর উপজেলার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে ১জন,৪নং ওয়ার্ডে ১জন,৫নং ওয়ার্ডে ২জন,ইছালী ও চাঁচড়া ইউনিয়নে ১জন শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া মনিরামপুর উপজেলার রোহিতা ইউনিয়নে ১জন, কেশবপুর উপজেলার বিদ্যানন্দকাঠি ইউনিয়নে ১জন শনাক্ত হয়েছেন।

 

 

তথ্যসূত্রঃ যশোর জেলা সিভিল সার্জন।