শ্যামনগরে সরকারি খাস জমিতে পাকা স্থাপনা তৈরী ‘থানায় অভিযোগ’

প্রকাশিত: ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২৩

এম কামরুজ্জামান, শ্যামনগর সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরা’র শ্যামনগর উপজেলার নূরনগর ইউনিয়নের রামজীবনপুর কেয়াতলা গ্রামে সরকারি খাস জমিতে পাকা স্থাপনা তৈরীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সহকারী কমিশনার (
ভূমি) এর নির্দেশে নূরনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে শ্যামনগর থানায় এজাহার প্রদান করেছেন। এজাহার সূত্রে জানা যায়, সরকারি খাস জমি মৌজা -রামজীবনপুর জে এল নং-৩৮, খতিয়ান নং-১ এস এ দাগ নং-১৩২, ৩৩ শতক জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণকারী রামজীবনপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জুব্বার গাজীর ছেলে মোঃ আব্দুল মালেক এবং মোঃ আব্দুল মালেক এর ছেলে মোঃ হাবিবুর গাজী এর নামে শ্যামনগর থানা এজাহার প্রদান করা হয়েছে। সরকারি সম্পত্তি আত্মসাৎ কারী ও আইন অমান্য কারী ব্যক্তিদের ১২ই মার্চ নূরনগর ইউনিয়ন ভূমি অফিস কর্মকর্তা পাকা স্থাপনা করতে প্রাথমিকভাবে নিষেধ করেন কিন্তু অভিযুক্ত ব্যক্তি কোন প্রকার কর্ণপাত না করে আবারও ১৫জুন চারজন নির্মাণ শ্রমিক নিয়ে ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে। গতকাল দুপুর ১২ টার দিকে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা সহ চারজন অফিস সহকারীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান এবং কাজ বন্ধ করার জন্য বলেন ওই সময় বিভিন্ন কথাবার্তার মধ্যে এক পর্যায়ে আব্দুল মালেকের স্ত্রী বলেন আমরা এই জায়গা রামজীবনপুর গ্রামের আবু তাহের সরদারের কাছ থেকে কিনেছি এবং পাকা ঘর করার জন্য উপরের অফিসে যোগাযোগ করে এসেছি। তাৎক্ষণিক বিষয়টি সহকারী কমিশনার ভূমি শ্যামনগর কে অবৈধ করলে তিনি শ্যামনগর থানায় এজাহার করার নির্দেশ প্রদান করেন। যেহেতু আসামিগণ সরকারি খাস সম্পত্তিতে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ সরকারি সম্পত্তি আত্মসাৎ এর চেষ্টা, সরকারি কাজে বাধা দান করেছেন সেহেতু বর্ণিত আসামিগণের বিরুদ্ধে আইনের প্রযোজ্য ধারায় অপরাধ আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা করনের নিমিত্তে আবেদন করা হয়েছে।