সব গ্রাহকের অর্থ ফিরিয়ে দেয়া হবেঃ ইভ্যালী

প্রকাশিত: ৭:০১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২২

ইভ্যালির গ্রাহকদের উদ্দেশে প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা শামীমা নাসরিন বলেছেন, আপনারা আমাদের ওপর আস্থা রাখতে পারেন। আমাদের কর্ম পরিচালনায় হাইকোর্ট থেকে নিয়োজিত দুজন ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডিরেক্টর নিয়োজিত রয়েছেন। যেকোনো শর্তে প্রতিষ্ঠানের সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাসেলের জামিন প্রার্থনা করা হবে বলে জানান তিনি।

ইভ্যালির সহ-প্রতিষ্ঠাতা বলেন, মাহবুব কবির মিলন (সাবেক অতিরিক্ত সচিব) স্যারও আমাদের সবসময় গাইড করছেন। আমাদের যেন কোনো ভুল না হয়, সে বিষয়ে তিনি আমাদের সতর্ক করে যাচ্ছেন। কোম্পানি অপসারণ না করার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল— এটি যেন আমরা প্রমাণ করতে পারি, সে ব্যাপারে তিনি আমাদেরকে পরামর্শ দিচ্ছেন। আমরা তাকে ধন্যবাদ জানাই।
আজ বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) বিকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন শামীমা নাসরিন।

তিনি বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া সব মামলা মূলত গ্রাহকের পাওনা পরিশোধে বিলম্ব হওয়ার অভিযোগ এবং চেক ডিজঅনার সম্পর্কিত। আমাদের বিরুদ্ধে চেক ডিজঅনারের যতগুলো মামলা হয়েছে, সেগুলো খুবই সামান্য। সর্বমোট প্রায় ২০ কোটি টাকা পাওনার মামলা হয়েছে। তবে অধিকাংশ গ্রাহক ইভ্যালির পক্ষে রয়েছে, আস্থা রেখেছে। মো. রাসেল যেসব মামলায় আটক রয়েছেন, সেগুলো সর্বমোট দেড় কোটি টাকার মামলা।
শামীমা নাসরিন বলেন, যারা মামলা করেছেন শুধু তাদেরই অর্থ ফেরত দেওয়া নয়, আমরা চাই সবার অর্থই ফেরত দিতে। আমরা যেহেতু বিজনেস করার সুযোগ পেয়েছি, মহামান্য আদালত লাখ-লাখ গ্রাহক এবং বিক্রেতার স্বার্থে শিগগিরই মো. রাসেলকে জামিন দেবেন বলে আমরা আশা করি। আমরা যেকোনো শর্তে জামিন প্রার্থনা করব।

মোট আটটি মামলায় মো. রাসেল আটক রয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, চেকের কিছু মামলা যেগুলো জামিনযোগ্য, সেগুলোর জামিন প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। এরকম মামলার সংখ্যা ১৫টি। আমরা সবাই কামনা করি যেন এ ব্যাপারে পজিটিভ কোনো আপডেট গ্রাহকদের আমরা দিতে পারি।