সরকারি শিশু পরিবার(মিশ্র)’র আয়োজনে পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উদযাপিত

প্রকাশিত: ১২:২২ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০২১

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়িতে সরকারি শিশু পরিবার(মিশ্র)’র আয়োজনে পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উদযাপন করা হয়েছে।

বুধবার(২০অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টায় দিবসটির উপলক্ষে সরকারি শিশু পরিবার(মিশ্র) এর মিলায়তনে আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, তবারক বিতরণ এবং দুপুরে ৮৯ জন অনাথ/এতিম নিবাসী শিশুদের জন্য উন্নতমানের খাবারের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ মনিরুল ইসলাম।সভাপতিত্ব করেন উপ-তত্ববধায়ক মোঃ নাজমুল আহসান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপ-পরিচালক মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন,আমাদের বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সকল ধর্ম তাদের নিজ নিজ উৎসব-আয়োজন সুষ্ঠুভাবে পালন করবে,এটাই আমাদের প্রত্যাশা। ইসলাম আমাদের তাই শিখিয়েছে।কারণ ইসলাম শান্তির ধর্ম। মুহাম্মদ ( সঃ) আজকের এই দিনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং তিনি বিশ্ব মানবতার জন্য সারাজীবন কাজ করে গেছেন। তিনি শত্রুর পাথরের আঘাতে ও উল্টো পাথর ছুঁড়ে মারে নি। তিনি ছিলেন ক্ষমাশীল,মানবিক।তাঁর শিক্ষা ও আদর্শকে লালন করে সকল মানুষের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে। ভালো চরিত্র দিয়ে মানুষের মন জয় করতে হবে।
এসময় তিনি নিবাসীদের মানবিক ও সৎ ধার্মিক জ্ঞানার্জনের জন্য প্রতি জোর আরোপ করতে পরামর্শ দেন।

এরপর উপতত্ত্বাবধায়ক মো. নাজমুল আহসান বলেন, সরকারি শিশু পরিবারে সকল ধর্মের শিশুরা মিলেমিশে বসবাস করছে, যা ভ্রাতৃত্ববোধ ও সম্প্রীতির একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ ( সঃ) বিদায় হজ্জের ভাষণে বিশ্বের সকল মানুষের মধ্যে শান্তি, সম্প্রীতি ও মানবপ্রেমের আহ্বান চারিদিকে ছড়িয়ে দিতে বলেছেন। বর্তমান প্রেক্ষাপটে বিশ্ব নবীর প্রকৃত শিক্ষা গ্রহণকারী ব্যক্তি কখনোই হিংসা, হানাহানি বা অন্য ধর্মের মানুষের প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ করতে পারে না। সকল মনীষীর জীবনী আমাদের জানতে হবে, অনুসরণ করতে হবে তাদের ভালো উপদেশ ও আদর্শকে।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন উপজেলা সমাজসেবা অফিসার অলক বড়ুয়া, মো. সাইজউদ্দিন। মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন মোঃ শহীদুল ইসলাম।

এসময় অনুষ্ঠানে আরো শিউলি বড়ুয়া, কারিগরী প্রশিক্ষক পুষ্প রানী ঘোষ প্রমুখ।