সাংসদ খন্দকার মোশাররফ হোসেনের করোনা শনাক্ত

প্রকাশিত: 10:29 PM, June 19, 2020

ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের সাংসদ ও সাবেক মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের (৭৮) শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তিনি বর্তমানে ঢাকার গুলশান ২ নম্বরে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন। তবে তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো। আজ শুক্রবার দুপুরের পরপরই এ খবর জানাজানি হলে মুহূর্তে তা ফরিদপুর শহরে ছড়িয়ে পড়ে।

খন্দকার মোশাররফের একান্ত সচিব (পিএস) মো. মোজাম্মেল হোসেন জানান, আজ শুক্রবার ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে খন্দকার মোশাররফের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। দুপুরে এ পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। তিনি বর্তমানে ঢাকায় গুলশানের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

সারা দেশে করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই খন্দকার মোশাররফ ফরিদপুর শহরে অবস্থান করে ত্রাণ কার্যক্রম তদারক করেন। পরবর্তী সময়ে তাঁর তদারকিতে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে করোনা শনাক্তকরণের জন্য পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়। ৯ জুন তিনি ঢাকার উদ্দেশে ফরিদপুর ত্যাগ করেন। গত বৃহস্পতিবার খন্দকার মোশাররফের ফরিদপুরে আসার কথা থকলেও শারীরিক অসুস্থতার জন্য সেটি বাতিল করা হয়।

নিজের করোনাভাইরাস শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে খন্দকার মোশাররফ প্রথম আলোকে বলেন, তিনি ঢাকার বাড়িতে অবস্থান করছেন। তাঁর শরীর ভালো আছে। তিনি চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে চলছেন। তিনি আরও বলেন, তাঁর মনোবল শক্ত রয়েছে এবং তিনি মোটেও বিচলিত হননি। নিজের সুস্থতার জন্য তিনি দোয়া করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান।

ফরিদপুর সদরের কৈজুরি ইউনিয়নের নূরুল হোসেনের বড় ছেলে খন্দকার মোশাররফ ২০০৮ সালের ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সাংসদ নির্বাচিত হন। একই আসন থেকে ২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৯ সালেও তিনি সাংসদ নির্বাচিত হন।

২০০৮ সালে সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার পর ২০০৯ সালে শ্রমমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তিনি প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। ২০১৪ সালে সাংসদ নির্বাচিত হয়ে ২০১৫ সালে তিনি স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী হন। বর্তমানে সাংসদ হিসেবে তিনি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।