সান্তাহারে অপ্রচলিত মৎস্য সম্পদ শামুক ঝিনুক চাষ শীর্ষক কর্মশালা

প্রকাশিত: ৬:০২ অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২১

আহসান হাবিব শিমুল (আদমদীঘি প্রতিনিধি)

বাংলাদেশে অপ্রচলিত মৎস্য সম্পদ ‘শামুক ঝিনুক চাষ ও সম্ভাবনা: গবেষণা অগ্রগতি শীর্ষক কর্মশালা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনিস্টিউট প্লাবন ভূমি উপকেন্দ্র সান্তাহার আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউট প্রধান কার্যালয় ময়মনসিংহ এর মূখ্য বৈজ্ঞানিক কমকর্তা (পরিকল্পনা) ড.জুলফিকার আলী। সান্তাহার শহরের উপহার টাওয়ারের শেফালী কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আদমদীঘি উপজেলা চেয়ারম্যান মৎস্য চাষী সিরাজুল ইসলাম খান রাজু, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালমা বেগম চাঁপা, নওগাঁ জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফিরোজ আহম্মেদ প্রমুখ।

সান্তাহারস্থ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউট ও প্লাবন ভূমি উপকেন্দ্রের ইনচার্য উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড.ডেভিট রেন্টু দাসের সভাপতিত্বে এবং বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মালিহা খানমের সঞ্চালনায় কর্মশালায় দেশের অপ্রচলিত মৎস্য সম্পদ শামুক ঝিনুক গবেষণার কারন ও চাষের প্রয়োজনীয়তা, উপকারিতা এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক চাহিদা এবং বাজার মূল্য সহ বিভিন্ন দিক নিয়ে প্রামান্য আলোচনা করেন এ সংক্রান্ত প্রকল্পের পরিচালক ড. সেলিনা ইয়াসমিন। একই বিষয়ে আরো বক্তব্য রাখেন ড. শহিদুল ইসলাম শহিদ, আযিযুল হক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রাণী বিদ্যা বিভাগের প্রফেসর জহিরুল ইসলাম প্রমুখ।

বিশেষ অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম খান রাজু বলেন, নড়বড়ে এই উপকেন্দ্র বিলুপ্তপ্রায় ভেদা, কুচিয়া এবং অতিসম্প্রতি বাতাসি মাছের কৃত্রিম প্রজননে সফল এবং গ্রীন হাউজ পদ্ধতিতে পাঙ্গাসের প্রজনন মৌসুম দুই মাস এগিয়ে আনতে চমকপদ সাফল্য দেখিয়েছে। এ কারনে প্লাবনভূমি উপকেন্দ্রটিকে অবিলম্বে পুর্ণাঙ্গ কেন্দ্র করার জোর দাবী জানাই।