সিন্দুকছড়ি দুর্গম এলাকায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে নারী দিবস পালন

প্রকাশিত: ১১:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ৮, ২০২২

খোকন বিকাশ ত্রিপুরা জ্যাক,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

“টেকসই আগামীর জন্য,জেন্ডার আগামীর জন্য”-এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতি(OLHF প্রকল্প ও REWG Program) ও পার্বত্য জেলা পরিষদের আয়োজনে প্রত্যন্ত ও দুর্গম এলাকায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার(৮ই মার্চ)সকালের দিকে খাগড়াছড়ির সিন্দুকছড়ি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত ও দুর্গম এলাকা লিচু বাগানে বর্ণিল আয়োজনের মধ্যদিয়ে পালন করা হয়।এ উপলক্ষে আলোচনা সভায় খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতির নির্বাহী পরিচালক শেফালিকা ত্রিপুরা’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গুইমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা।

এ সময় আলোচনা সভায় কেএমকেএস’র প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর গীতিকা ত্রিপুরা’র সঞ্চালনায় উশ্যেপ্রু মারমা বলেন,আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। লৈঙ্গিক সমতার উদ্দেশ্যে প্রতিবছর বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই দিনটি বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে পালন করা হয়। নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা, তাদের কাজের স্বীকৃতি দানের পাশাপাশি অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক সাফল্য উদযাপনের উদ্দেশ্যে নানা আয়োজনে বিশ্বব্যাপী পালিত হয় দিনটি। এ বছরের নারী দিবসে জাতিসংঘের স্লোগান ‘নারীর সুস্বাস্থ্য ও জাগরণ’। নারীর প্রতি সবরকম বৈষম্য ও অন্যায়-অবিচারের অবসান ঘটিয়ে একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও গণতান্ত্রিক বিশ্ব গড়ার কাজে পুরুষের সমান অবদান রাখার প্রত্যয় নিয়ে নারীর এগিয়ে চলা আরও বেগবান হোক এই প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

কেএমকেএস’র নির্বাহী পরিচালক শেফালিকা ত্রিপুরা বলেন,নারী পুরুষের সমতার প্রশ্নে কোন আপসের জায়গা নেই। তবে নারীর অগ্রগতিতে পুরুষকে সম্পৃক্ত করার প্রয়োজন আছে। যতদিন না সেই সমতা প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে ততদিন নারীর অধিকারের প্রশ্নগুলোকে সামনে আনার জন্য যতরকমের বিশেষ ব্যবস্থা করা যায় সেটি করতে হবে।নারী এবং পুরুষের বৈষম্য একদিন অবসান হবে।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিন্দুকছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেডাক মারমা,সিন্দুকছড়ি ইউনিয়নের মহিলা সদস্য রুইপাই মারমা,মেম্বার দুরিমং মারমা,সহকারি শিক্ষক হ্যাপি বড়ুয়া প্রমুখ।এছাড়া শত শত নারী-কিশেরীরা উপস্থিত ছিলেন।